জাতির কাছে ক্ষমা চাইলেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস

শ্রীলঙ্কা দল দেশবাসীকে হতাশ করায় দুঃখপ্রকাশ করে ক্ষমা চেয়ে নিয়েছেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস

ক্রিকেটে যেকোন কিছু ঘটতে পারে। বাজে পারফরম্যান্সের পর সাধারণত এমন কথাবার্তাই শোনা যায় ক্রিকেটারদের মুখে। তবে সেরকম কিছু বলেননি অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস। শ্রীলঙ্কা দল দেশবাসীকে হতাশ করেছে তাদের পারফরম্যান্সে, সেজন্য দুঃখপ্রকাশ করে ক্ষমা চেয়ে নিয়েছেন তিনি। প্রথম রাউন্ডে লঙ্কানদের বিদায়ের পেছনে এই অলরাউন্ডার ব্যাটিং লাইনআপকেই দায় দিয়েছেন।

সুপার এইটে জায়গা না পাওয়া শ্রীলঙ্কার একটি ম্যাচ বাকি। নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে সে ম্যাচের আগে রোববার সংবাদ সম্মেলনে ম্যাথিউস বলেন, 'প্রথমত আমার মনে হয় আমরা পুরো জাতিকে হতাশ করেছি এবং আমরা এর জন্য সত্যিই দুঃখিত। আমরা কখনো এটা প্রত্যাশা করিনি। এটা দুর্ভাগ্যজনক যে আমরা দ্বিতীয় রাউন্ডে যেতে পারিনি। দলের আশা, শ্রীলঙ্কার আশাও আমাদের দ্বারা ধ্বংস হয়েছে। তো আমরা এজন্য দুঃখিত এবং আমি এর জন্য ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি। যা করতে এসেছি দল হিসেবে এখানে তা করতে পারিনি।'

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের নবম আসরে প্রথম দুই ম্যাচ হেরেই বিদায়ের পথ খোলা হয়ে গিয়েছিল শ্রীলঙ্কার জন্য। নিউইয়র্কে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে লঙ্কানরা হেরে গিয়েছিলেন ৬ উইকেটে। এরপর ডালাসে বাংলাদেশের বিপক্ষে ২ উইকেটে হেরে যায় ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গার দল। নিজেদের প্রথম ম্যাচে লঙ্কানরা প্রোটিয়াদের বিপক্ষে গুটিয়ে গিয়েছিল ৭৭ রানে। পরের ম্যাচে টাইগারদের বিপক্ষেও পারেনি ১২৪ রানের বড় স্কোর গড়তে।

ব্যাটিংই তাদের পিছিয়ে দিয়েছে বলে মনে করেন ম্যাথিউস, 'আমার মনে হয় ওই (প্রথম) দুই ম্যাচে ব্যাটাররা সফল হতে পারেননি বলে আমরা সফলতা পাইনি। ফিল্ডার এবং বোলাররা দারুণ কাজ করেছে ছোট স্কোর থাকা সত্ত্বেও। তারা দুটি ম্যাচেই ভালো করেছে এবং দুটি ম্যাচই বেশ প্রতিদ্বন্দিতাপূর্ণ হয়েছে। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত আমরা জিততে পারিনি।'

শ্রীলঙ্কার হয়ে চারশর বেশি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলা ম্যাথিউস আরও বলেন, 'এরকম টুর্নামেন্টে একটি ম্যাচ হারলেই সামনে এগুনো অনেক কঠিন হয়ে যায়। নেপালের সঙ্গে ম্যাচটি দুর্ভাগ্যজনকভাবে বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয়ে গেল। তো আমাদের একটা ম্যাচ বাকি আছে এখন, সেটিতে ভালো খেলে জেতার আশা করছি।'

আগামীকাল (সোমবার) বাংলাদেশ সময় ভোর সাড়ে ছয়টায় নেদারল্যান্ডসের মুখোমুখি হবে শ্রীলঙ্কা। ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে সেন্ট লুসিয়ার ড্যারেন সামি ন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে।

Comments

The Daily Star  | English

Situation still tense at Shanir Akhra

Protesters, cops hold positions after hours of clashes; one feared dead; six wounded by shotgun pellets; Hanif Flyover toll plaza, police box set on fire

10h ago