বিশ্বকাপ শেষ বেনজেমার, চোটে কাবু বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা

চোটের হানায় একের পর এক তারকাকে হারানোর মিছিল যেন কিছুতেই থামছে না বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সের। বিশ্বকাপ শুরুর মাত্র ২৪ ঘন্টা আগে তারা পেল সবচেয়ে খারাপ খবর।
Karim Benzema

চোটের হানায় একের পর এক তারকাকে হারানোর মিছিল যেন কিছুতেই থামছে না বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সের। বিশ্বকাপ শুরুর মাত্র ২৪ ঘন্টা আগে তারা পেল সবচেয়ে খারাপ খবর। পেশির চোটে ব্যালেন ডি'অর জয়ী রিয়াল মাদ্রিদ তারকা করিম বেনজেমার বিশ্বকাপ শেষ হয়ে গেছে।

শনিবার মাঝরাতে ফ্রেঞ্চ ফুটবল ফেডারেশন জানায় এই খারাপ খবর। পায়ের পেশির চোটে বিশ্বকাপে আর খেলা হচ্ছে না ফ্রান্সের আক্রমণ ভাগের সবচেয়ে বড় সেনানির।

আগের মৌসুম দাপিয়ে বেড়ালেও চলতি মৌসুমে চোট নাজেহাল করছিল বেনজেমাকে। শুরুতে পড়েছিলেন হাঁটুর চোটে। সেটা থেকে সেরে উঠলেও পায়ের পেশির টান বেশ ভোগাচ্ছিল তাকে। রিয়ালের শেষ চার ম্যাচেও সেকারণে খেলেননি।

চোট থাকার পরও তাকে বিশ্বকাপ স্কোয়াডে রাখেন কোচ দিদিয়ের দেশম। শনিবার দোহায় অনুশীলন নেমেই আর টিকতে পারেননি। পেশির সমস্যার কারণে মাঠ ছাড়তে হয় তাকে।

বিশ্বকাপ স্কোয়াড ঘোষণার আগে ফ্রান্স চোটের কারণে হারায় দুই মিডফিল্ডার পল পগবা ও এনগোলো কান্তেকে। বিশ্বকাপ স্কোয়াড নিয়ে অনুশীলনের সময়  সতীর্থ এদুয়ার্দো কামাভিঙ্গার ট্যাকলে চোট পেয়ে ছিটকে যান ফরোয়ার্ড ক্রিস্তোফার এনকুনকু। তার আগে ছিটকে যান ডিফেন্ডার প্রিসনেল কিম্পেবে। এবার তারা হারালো বেনজেমার মতো তারকাকে। 

এই ফরোয়ার্ডের চোটের খবরে হতাশা জানান কোচ দেশম, 'করিমের জন্য খুব খারাপ লাগছে। বিশ্বকাপে সে বড় লক্ষ্য নিয়ে এসেছিল। ফ্রান্স দল এই ধাক্কার পর বাকিদের উপর আস্থা রাখছে। কঠিন চ্যালেঞ্জে আমরা জিততে সর্বোচ্চ নিংড়ে দিব।'

২০১৪ সালে ব্রাজিল বিশ্বকাপে ফ্রান্স স্কোয়াডে ছিলে বেনজেমা। ২০১৫ সালে সেক্সটেপ কাণ্ডে ব্ল্যাকমেইল করার অভিযোগে জাতীয় দলে জায়গা হারান তিনি।

গত বছর ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপে ৫ বছর পর ফিরেছিলেন ৩৪ পেরুনো এই তারকা। দারুণ পারফর্ম করে জায়গাও করেছিলেন পাকা।

ক্লাব ফুটবলে রিয়ালের হয়ে গেল মৌসুম চোখ ধাঁধানো ফুটবল খেলেন বেনজেমা। রিয়ালের লা লিগা ও চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতায় তার ছিল বড় অবদান, মৌসুমে ৪৪ গোল করে প্রথমবারের মতো জেতেন ব্যালেন ডি'অর।

শিরোপা ধরে রাখার মিশনে এবার কিলিয়ান এমবাপের সঙ্গে করিম বেনজেমার দুর্ধর্ষ জুটি দেখার অপেক্ষায় ছিল ফ্রান্স, অপেক্ষায় ছিলেন ফুটবলপ্রেমীরাও। সবাইকেই হতে হলো হতাশ।

Comments