আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০২৩

স্বার্থের সংঘাতের অভিযোগ ওঠার পর ইনজামামের পদত্যাগ

তদন্তে নির্দোষ প্রমাণিত হলে অবশ্য পাকিস্তানের প্রধান নির্বাচকের দায়িত্বে ফিরে আসবেন তিনি।

স্বার্থের সংঘাতের অভিযোগ ওঠার পর ইনজামামের পদত্যাগ

তদন্তে নির্দোষ প্রমাণিত হলে অবশ্য পাকিস্তানের প্রধান নির্বাচকের দায়িত্বে ফিরে আসবেন তিনি।
ছবি: এএফপি

বিশ্বকাপের মাঝেই পদত্যাগ করেছেন পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) প্রধান নির্বাচক ইনজামাম উল হক। সম্ভাব্য স্বার্থের সংঘাতের অভিযোগ ওঠার পর তার বিরুদ্ধে ইতোমধ্যে তদন্ত শুরু করেছে সংস্থাটি।

সোমবার লাহোরে পিসিবি চেয়ারম্যান জাকা আশরাফের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন ইনজামাম। এরপর দায়িত্ব থেকে তাৎক্ষনিক সরে দাঁড়ান ৫৩ বছর বয়সী সাবেক ক্রিকেটার। পিসিবিও এক বিবৃতিতে তার পদত্যাগের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

পিসিবির ওই বিবৃতিতে নিজের সিদ্ধান্তের ব্যাখ্যায় ইনজামাম বলেন, 'গণমাধ্যমে উত্থাপিত স্বার্থের সংঘাতের অভিযোগের বিষয়ে একটি স্বচ্ছ তদন্ত করার জন্য পিসিবিকে সুযোগ দিতে আমি পদ থেকে সরে যাচ্ছি।'

পাকিস্তানের গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে উঠে এসেছে যে, ইনজামাম যুক্তরাজ্যভিত্তিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ইয়াজু ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেডের চারজন সক্রিয় পরিচালকের একজন। কোম্পানিটির আরেক পরিচালক হলেন সায়া কর্পোরেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তালহা রেহমানি। ওই প্রতিষ্ঠান পাকিস্তান দলের অনেক ক্রিকেটারের এজেন্ট হিসেবে কাজ করে। তাদের মধ্যে আছেন অধিনায়ক বাবর আজম, শাহিন শাহ আফ্রিদি ও মোহাম্মদ রিজওয়ানের মতো তারকা। যুক্তরাজ্য সরকারের একটি পাবলিক সেক্টর তথ্য ওয়েবসাইট অনুসারে, ইনজামামের পাশাপাশি রিজওয়ানও ইয়াজুর একজন পরিচালক। কোম্পানিটির সচিব হলেন ইনজামামের ভাই ইন্তিসার উল হক।

ওই প্রতিষ্ঠানের তিনজন পরিচালক ও সচিবকে ২০২০ সালের ৭ ডিসেম্বর নিযুক্ত করা হয়েছিল। ইনজামামকে যখন চলতি বছরের শুরুতে পাকিস্তানের প্রধান নির্বাচক করা হয়, তখন ইয়াজুর সঙ্গে বা তার ভাই, রিজওয়ান ও রেহমানির সঙ্গে তার সম্পৃক্ততা প্রকাশ করা হয়নি। এতে ইনজামামকে ঘিরে একটি অস্বস্তিকর প্রশ্ন উঠেছে যে, জাতীয় দলের নির্বাচকের হিসেবে তার এমন একটি কোম্পানিতে সরাসরি অংশীদারিত্ব থাকা উপযুক্ত ও যথাযথ কিনা যেটার পরিচালক হিসেবে তিনি পাকিস্তানের সবচেয়ে খ্যাতনামা খেলোয়াড়দের এজেন্ট।

নির্দোষ প্রমাণিত হলে অবশ্য দায়িত্বে ফিরে আসবেন পাকিস্তানের প্রাক্তন অধিনায়ক ইনজামাম, 'তদন্ত কমিটি যদি আমাকে দোষী না মনে করে, তাহলে আমি প্রধান নির্বাচক হিসেবে আমার ভূমিকা আবার শুরু করব।'

এরপর পিসিবি ঘোষণা করেছে যে, গণমাধ্যমে প্রকাশিত দল নির্বাচন প্রক্রিয়ার সঙ্গে সম্পর্কিত স্বার্থের সংঘাতের বিষয়ে ওঠা অভিযোগ তদন্তের জন্য পাঁচ সদস্যের একটি ফ্যাক্ট-ফাইন্ডিং কমিটি গঠন করা হয়েছে। এই কমিটি 'দ্রুতগতি'তে তাদের প্রাপ্ত ফলাফল জমা দেবে।

দ্বিতীয় দফায় প্রধান নির্বাচক হওয়া ইনজামামের আচমকা পদত্যাগ নিঃসন্দেহে পাকিস্তানের জন্য বড় ধাক্কা। কারণ মাঠের মলিন পারফরম্যান্সে এমনিতেই ভোগান্তিতে আছে দলটি। বিশ্বকাপে ছয় ম্যাচের মাত্র দুটিতে জেতায় তাদের সেমিফাইনালে খেলার আশা প্রায় শেষ হয়ে গেছে।

Comments

The Daily Star  | English

Govt may go for quota reforms

The government is considering a “logical reform” in the quota system in the public service, but it will not take any initiative to that end or give any assurances until the matter is resolved by the Supreme Court.

1d ago