প্রতিযোগিতা ঠিক আছে, প্রতারণা নয়: থ্রেডস নিয়ে মাস্ক

মামলার হুমকি টুইটারের
টুইটার ও থ্রেডস এর লোগো। প্রতিকী ছবি: রয়টার্স
টুইটার ও থ্রেডস এর লোগো। প্রতিকী ছবি: রয়টার্স

থ্রেডসের জন্য মেটার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার হুমকি দিয়েছে টুইটার।

রয়টার্স জানায়, বুধবার মেটার প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গকে পাঠানো চিঠিতে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছেন টুইটারের আইনজীবী অ্যালেক্স স্পিরো।

বুধবার চালু হওয়ার পর দুদিনেই ৩ কোটির বেশি ব্যবহারকারী যুক্ত হয়েছেন থ্রেডসে। মার্ক জাকারবার্গসহ মেটার অন্যান্য কর্মকর্তারাও ব্যবহারকারীদের কাছে থ্রেডসকে টুইটারের বিকল্প হিসেবেই তুলে ধরছেন।

থ্রেডস তৈরি করতে 'পরিকল্পিত, ইচ্ছাকৃত ও বেআইনিভাবে টুইটারের গোপনীয় ব্যবসায়িক কৌশল এবং অন্যান্য মেধাস্বত্ব' ব্যবহারের অভিযোগ করেছেন আইনজীবী স্পিরো।

তার অভিযোগ, টুইটারের কয়েক ডজন সাবেক কর্মীকে মেটা এ কাজে লাগিয়েছে, যাদের পক্ষে টুইটারের অতি গোপনীয় তথ্যগুলো জানার সুযোগ ছিল এবং শেষ পর্যন্ত ওই তথ্যই টুইটারের আদলে থ্রেডস তৈরিতে সাহায্য করেছে।

চিঠিতে বলা হয়েছে, মেটাকে অবিলম্বে টুইটারের 'ট্রেড সিক্রেট' এবং অন্যান্য অতি গোপনীয় তথ্য ব্যবহার বন্ধ করতে হবে। তা না হলে টুইটার তার মেধাস্বত্ব রক্ষায় কঠোর পদক্ষেপ নেবে। 
এর জবাবে মেটার মুখপাত্র অ্যান্ডি স্টোন এক থ্রেডস পোস্টে বলেছেন, 'থ্রেডস ইঞ্জিনিয়ারিং টিমের কেউ সাবেক টুইটার কর্মচারী নয়।'

এদিকে, এই খবর শেয়ার করে ইলন মাস্ক এক টুইটে বলেন, 'প্রতিযোগিতা ঠিক আছে, প্রতারণা নয়।'

গতকাল বুধবার বাংলাদেশ সময় ভোর ৫টায় চালু হয় টুইটারের অনুরূপ মাইক্রোব্লগিং অ্যাপ 'থ্রেডস'। ইনস্টাগ্রামের সহযোগী অ্যাপ হিসেবে আজকে থেকে এটি অ্যান্ড্রয়েড ও অ্যাপলের অ্যাপস্টোরে পাওয়া যাচ্ছে।

টুইটারের মতো থ্রেডস অ্যাপেও সব পোস্টে লাইক, রিপোস্ট, রিপ্লাই ও শেয়ারের সুযোগ আছে। অ্যাপে ব্যবহারকারীর ছবি ছোট ও বৃত্তাকারে প্রদর্শিত হবে। এখানেও টুইটারের মতো নীল টিক থাকবে। ছবি, ভিডিও এবং লিঙ্ক যুক্ত করে বার্তা পোস্ট করা যাবে। শুধু তাই নয়, পোস্টে অন্য ব্যবহারকারীরা মন্তব্যের সঙ্গে প্রতিক্রিয়াও জানাতে পারবেন। পছন্দের ব্যক্তিদের অ্যাকাউন্ট অনুসরণও করা যাবে।

Comments

The Daily Star  | English

Lifts at public hospitals: Horror abounds

Shipon Mia (not his real name) fears for his life throughout the hours he works as a liftman at a building of Sir Salimullah Medical College, commonly known as Mitford hospital, in the capital

3h ago