সামাজিক মাধ্যমের বিশ্বাসযোগ্যতা পুনরুদ্ধারে বি’রিয়েল

গুগলে ‘Social media is so...’ লিখে সার্চ দেওয়ার পর প্রথম যে দুটো অটোকমপ্লিট সাজেশন আমি গুগলে পেলাম, তা হলো ‘ফেইক’ (মিথ্যা) ও ‘টক্সিক’ (বিষাক্ত)। যদিও গুগোল সার্চে প্রথমে কী সামনে আসবে সে বিষয়ে একমত হবার ক্ষেত্রে মানদণ্ড হিসেবে ধরে নেওয়াটা সাধারণীকরণের সবচেয়ে ভালো উপায় নয়; তবে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম যে সাজানো বা মিথ্যা- এ ধরনের বক্তব্যের বিষয়ে খুব কমই দ্বিমত দেখা গেছে। 
সামাজিক মাধ্যমের বিশ্বাসযোগ্যতা পুনরুদ্ধারে বি’রিয়েল
সামাজিক মাধ্যমের বিশ্বাসযোগ্যতা পুনরুদ্ধারে বি’রিয়েল

গুগলে 'Social media is so...' লিখে সার্চ দেওয়ার পর প্রথম যে দুটো অটোকমপ্লিট সাজেশন আমি গুগলে পেলাম, তা হলো 'ফেইক' (মিথ্যা) ও 'টক্সিক' (বিষাক্ত)। যদিও গুগোল সার্চে প্রথমে কী সামনে আসবে সে বিষয়ে একমত হবার ক্ষেত্রে মানদণ্ড হিসেবে ধরে নেওয়াটা সাধারণীকরণের সবচেয়ে ভালো উপায় নয়; তবে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম যে সাজানো বা মিথ্যা- এ ধরনের বক্তব্যের বিষয়ে খুব কমই দ্বিমত দেখা গেছে। 

প্রায় সব সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম নিজেদের যেভাবে আপডেট করেছে, তাতে প্রত্যেকটা অ্যাপ আরও বেশি 'টিকটকাইজড' হয়ে পড়েছে। এর ভেতর আছে অগণিত ফিল্টার, এমন ফিচার যা আপনাকে একের পর এক ভিডিও দেখে যেতে উদ্বুদ্ধ করে। রয়েছে ভিন্ন ভিন্ন রিঅ্যাক্ট বাটন, স্পন্সরড পোস্টসহ আরও নানা কিছু। এই ফিচারগুলো আপনার মস্তিষ্কের রিঅ্যাওয়ার্ড সেন্টারকে কাজ করায়। প্রতিটি লাইক পাবার সঙ্গে সঙ্গে আপনার শরীর ডোপামিন নিঃসরণ করে, যার ফলে প্রায় সব সামাজিক মাধ্যম তরুণদের জন্য পৃথিবীজুড়ে আসক্তির সঙ্গে উদ্বিগ্নতার উৎসেও  পরিণত হয়েছে। 

আপনার জীবনকে আরও ভালো দেখানো ও অন্যদের 'নান্দনিক' জীবনযাপন করতে দেখার এই নিঃসীম ও সর্বগ্রাসী চক্রে, 'বি রিয়েল' প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে ছবি শেয়ারের ক্ষেত্রে অধিকতর সুস্থতার। এই অ্যাপটি আপনাকে প্রতিদিন ২ মিনিটের একটি র‍্যান্ডম উইন্ডো দেবে, যাতে আপনি ডুয়ের ক্যামেরার সাহায্যে যেকোনো জায়গায় যেকোনো কিছু করতে থাকা অবস্থায় আপনার ছবি পোস্ট করতে পারেন। এখানে কোনো এক্সপ্লোর পেজ নেই, নেই কোনো ফিল্টার বা লাইক বা ফলোয়ার। আপনার বন্ধুদের ছবিতে কোনো প্রতিক্রিয়া জানানোর একমাত্র উপায় হলো আপনার একটি ছবি তুলে প্রতিক্রিয়া জানানো। যেহেতু টাইমারটি দিনের যেকোনো মুহূর্তে আসতে পারে, এটি আপনাকে দেখাবে, মানুষের জীবন যেমন ঠিক তেমনভাবেই। অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের মতো শুধু অন্যদের জীবনের পোস্ট করা সেরা অংশগুলো দেখাবে না। 

ইনস্টাগ্রামের অতিমাত্রার কৃত্রিম অ্যাস্থেটিকস একঘেঁয়ে হতে শুরু করলে ২০২০ সালের মাঝামাঝিতে বি রিয়েলের 'ক্যাজুয়্যাল পোস্টিং'-এর ধারণার সৃষ্টি হয়। 

বি রিয়েল ব্যবহার করলে আপনার ছবি পলিশ বা পরিবর্তন করার সুযোগ থাকছে না। 

বি রিয়ালের আরেকটি ফিচার, বা অন্যকথায় ঘাটতিও বলা চলে- যেটার প্রশংসা লোকজন সচেতনভাবেই করছে; এখানে ডুম-স্ক্রলিং (অপ্রয়োজনীয় নেতিবাচক জিনিস দেখানোর) কোনো সুযোগ নেই। আপনার ফিডে শুধু আপনার বেছে নেওয়া বন্ধুদের পোস্টই থাকবে, এর বেশিও না, কমও না। 
এ ছাড়া অন্যান্য প্ল্যাটফর্মগুলোয় কন্টেন্টের বন্যায় ভেসে যাওয়ার পর এখানে সাজেস্টেড পোস্ট বা বিজ্ঞাপনের অনুপস্থিতি খুব স্বস্তিদায়ক বোধ হবে। তা ছাড়া, শুধু নিজের ছবি প্রতিদিন পোস্ট করার পরই অন্যদের পোস্ট দেখতে পাওয়ার ব্যাপারটা মানুষকে পোস্ট করতেও উৎসাহিত করবে। 

সংক্ষেপে, বি রিয়েল ইনস্টাগ্রাম, ফেসবুক কিংবা টিকটকের চেয়ে অনেক বেশি স্বাচ্ছন্দ্যময় সামাজিকযোগাযোগ মাধ্যম। এখানে পারফর্ম করার চাপ কম, নিজেকে সুদর্শন দেখানোর চাপ কম ও উদ্দেশ্যহীনভাবে স্ক্রল করে যাওয়ার প্রেষণাও কম। 

তবে আমরা আমাদের বেশিরভাগ সময় যেসব অ্যাপে ব্যয় করি, সেসব প্রচলিত ও আকর্ষণীয় অ্যাপগুলোর এটি বিকল্প নয়। কাজেই, এটি আমাদের সার্বিক ইতিবাচক অভিজ্ঞতা বাড়াবে, তবে এমনটা আশা করবেন না,  অন্যান্য মহীরুহ সামাজিক মাধ্যমগুলোর খারাপ দিক থেকে আমরা যেসব ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছি, তার কোনোটাকে এটা নিষ্ক্রিয় করতে পারবে।

 

অনুবাদ করেছেন মাহমুদ নেওয়াজ জয় 

 

Comments

The Daily Star  | English

Idrakpur fort: A museum without artefacts

Abdur Rahman Mustakim, a student from Narayanganj, visited the Idrakpur Fort Museum in Munshiganj with his relatives. While he was impressed by the fort itself, he was deeply disappointed by the museum's lack of antiquities

33m ago