হেনস্তার বিচার চেয়ে ঢাবি উপাচার্যের কাছে সেই ছাত্রীর লিখিত অভিযোগ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) টিএসসিতে হেনস্তা ও মারধরের বিচার চেয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ভুক্তভোগী ছাত্রী।
ঢাবি ভর্তি পরীক্ষা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) টিএসসিতে হেনস্তা ও মারধরের বিচার চেয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ভুক্তভোগী ছাত্রী।

অভিযোগকারী রাজধানীর একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের ওই শিক্ষার্থী গতকাল মঙ্গলবার রাতে উপাচার্যের বাসভবনে গিয়ে এ অভিযোগ দেন।

সোমবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে রাজু ভাস্কর্য সংলগ্ন এলাকায় ওই ছাত্রীকে ঢাবির সমাজকল্যাণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী নাজমুল হেনস্তা ও মারধর করেন বলে অভিযোগ করা হয়।

নাজমুল মাস্টার দা সূর্যসেন হলের আবাসিক ছাত্র ও ছাত্রলীগকর্মী বলে ঢাবি ছাত্রলীগের সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাস দ্য ডেইলি স্টারকে নিশ্চিত করেছেন।

লিখিত অভিযোগে বলা হয়, ওই রাতে দুজন বন্ধুর সঙ্গে রাজু ভাস্কর্যের সামনে ছবি তুলছিলেন ওই ছাত্রী। হঠাৎ ছাত্রলীগ কর্মী নাজমুল সেখানে গিয়ে তাদের ক্যাম্পাসে আসার কারণ জানতে চান। 

তারা ছবি তুলছিলেন জানালে নানা ধরনের প্রশ্ন করেন নাজমুল এবং একপর্যায়ে ওই ছাত্রীকে অশালীন ভাষায় গালিগালাজ করেন। ওই ছাত্রীকে নাজমুল চড় মারেন বলেও অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।

এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচার দাবি করেছেন ওই ছাত্রী।

জানতে চাইলে উপাচার্য ড. মো. আখতারুজ্জামান দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, 'লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। এটি গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হচ্ছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নারীদের জন্য নিরাপদ রাখা হবে এটাই কাম্য।'

তিনি আরও বলেন, 'বিষয়টি দেখতে প্রক্টরকে বলা হয়েছে। তিনি বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন।'

'সূর্যসেন হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক মোহাম্মদ মকবুল হোসেন ভূঁইয়াকে ওই শিক্ষার্থী সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানাতে বলা হয়েছে,' যোগ করেন তিনি। 

জানতে চাইলে প্রভোস্ট অধ্যাপক মোহাম্মদ মকবুল হোসেন ভূঁইয়া ডেইলি স্টারকে বলেন, 'নাজমুলের কক্ষে ইতোমধ্যে আবাসিক শিক্ষকদের পাঠানো হয়েছে। তার সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য সংগ্রহ করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হয়েছে।'

Comments

The Daily Star  | English

Cattle sales yet to gain momentum

Till this evening, a number of sacrificial animals, especially bulls, were present at all 16 cattle markets in Dhaka, but customer turnout was notably low until 5:00pm

1h ago