ক্যাম্পাস

ইউল্যাবে বাংলা ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের যাত্রা

ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্ট বাংলাদেশ-এ (ইউল্যাব) ‘বাংলা ভাষা ও সাহিত্য বিভাগ’ যাত্রা শুরু করেছে।

ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্ট বাংলাদেশ-এ (ইউল্যাব) 'বাংলা ভাষা ও সাহিত্য বিভাগ' যাত্রা শুরু করেছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর মোহাম্মদপুরে বিশ্ববিদ্যালয়টির স্থায়ী ক্যাম্পাসে প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের নবীন বরণ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে নতুন বিভাগ উদ্বোধন করেন বাংলা একাডেমির সভাপতি সেলিনা হোসেন। অনুষ্ঠানে অনেকের মধ্যে ছিলেন সাহিত্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ, কলকাতার দে'জ পাবলিকেশনের পরিচালক শুভঙ্কর দে অপু, কলকাতার কবি ও চলচ্চিত্র পরিচালক চন্দ্রিল ভট্টাচার্য এবং ইউল্যাব উপাচার্য অধ্যাপক ইমরান রহমান।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সেলিনা হোসেন বলেন, 'ইউল্যাবে আজ বাংলা ও সাহিত্য বিভাগ চালু হচ্ছে, এটা অনেক আনন্দের। আমরা ইউল্যাব কর্তৃপক্ষকে অভিনন্দন জানাচ্ছি।'

তিনি বলেন, 'আমাদের ভাষার মর্যাদার জন্য আমরা একুশে ফেব্রুয়ারি পালন করেছিলাম, সেটা আজ আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হয়েছে। যেসব দেশ উপনিবেশ হিসেবে অন্য দেশের অধীনে আছে, তারা তাদের মাতৃভাষার মর্যাদার জন্য আমাদের একুশে ফেব্রুয়ারি উদযাপন করবে তাদের দেশে, এটা আমাদের জন্য অনেক বড় জায়গা। একুশে ফেব্রুয়ারি আমাদের জাতিসত্তার বিশাল গৌরবের জায়গা।'

তিনি বলেন, 'আমি যখন যেখানে যাই সবাইকে বলি, আমাদের সাহিত্য সাতচল্লিশ পরবর্তী সময় থেকে যেভাবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে, ভিন্ন স্রোতমাত্রায়, সে জায়গাকে ধারণ করে আমাদের সাহিত্যকে অনুবাদ করবেন। এটা ইংরেজিকে মর্যাদা দেওয়া নয়, আমাদের মাতৃভাষাকে মর্যাদায় তোলা।'

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ বলেন, 'আমরা জ্ঞানকে হারিয়ে ফেলেছি। কারণ এটা জ্ঞানের যুগ নয়, এটা অর্থের যুগ। এক সময় ধর্মের যুগ ছিল, একসময় বিজ্ঞানের যুগ ছিল, শিল্প-সাহিত্যের যুগ ছিলে, দর্শনের যুগ ছিল। আজকের পৃথিবী সবচেয়ে বিপজ্জনক জায়গায় এসে দাঁড়িয়েছে, আজকে বিত্ত-বৈভবের যুগ। পৃথিবীজুড়ে বিত্তের এই আগ্রাসন আগে কখনও হয়নি৷ আমরা সেই যুগে এসে পড়েছি। সবকিছুর মূল্যবোধ আছে, কবিতার মূল্যবোধ আছে, দর্শনের মূল্যবোধ আছে, শুধু টাকার কোনো মূল্যবোধ নেই।'

'আমাদের জ্ঞানকে তপস্যার মতো করে নিতে হবে' উল্লেখ করে আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ বলেন, 'আজ বাংলা নেই। কারণ বাংলা টাকা আনতে পারে না। শুধু বাংলা পড়লাম তাতে কোনো লাভ হবে না, আমি বাংলাকে পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ জায়গায় নিয়ে যাব এই চিন্তা থাকতে হবে। সেটার জন্য ত্যাগ স্বীকারের মানসিকতা থাকতে হবে।'

তরুণ শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ বলেন, 'যদি বাংলার চর্চা করি, বাংলাকে বড় জায়গাতে নিতে যে ত্যাগ স্বীকার প্রয়োজন তা করি, তাহলে বাংলা পড়েও তুমি সফল হবে। যেটা করবে ভালো করে করবে, কারণ পৃথিবী ভালোর কাছে ঋণী।'

স্বাগত বক্তব্যে বাংলা ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের উপদেষ্টা অধ্যাপক শামীম রেজা বলেন, 'এই বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলা বিভাগ চালু করে আমরা গর্বিত। আমাদের মাতৃভাষা বাংলা ছাড়াও, ৪৪টি নৃ-গোষ্ঠীর ভাষা ও সাহিত্য আছে, এসব ভাষা সাহিত্য নিয়েও ১০০ নম্বরের কোর্স থাকছে আমাদের। এটাই প্রথম বিশ্ববিদ্যালয় যেখানে নৃ-গোষ্ঠীদের ভাষা পড়ানো হবে।'

কলকাতার দে'জ পাবলিকেশনের পরিচালক শুভঙ্কর দে অপু বলেন, 'আমার বাংলাদেশে আসতে ভালো লাগে ৷ কারণ একমাত্র বাংলাদেশই একমাত্র দেশ, যেখানে মাতৃভাষায় কথা বলতে পারি।'

প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, 'বাংলা শুধু পড়লে হবে না, ভালোবেসে পড়তে হবে। কারণ মানুষই একমাত্র প্রাণী যাকে মানুষ হয়ে উঠতে হয়। মাতৃভাষার শিক্ষা নিলেই আমরা মানুষ হয়ে উঠতে পারব।'

কলকাতার কবি ও চলচ্চিত্র পরিচালক চন্দ্রিল ভট্টাচার্য বলেন, আমরা যখন শিক্ষা লাভ করতে আসি, আমরা জীবনকে উদযাপন করতে, জ্ঞান লাভ করতে, ভাষা চর্চাকে এগিয়ে নিতে, আমরা শিক্ষা লাভ করতে আসি না, টাকা উদযাপন করতে আসি।'

কবি চন্দ্রিল ভট্টাচার্য উল্লেখ করেন, 'খুব ভালো করে সাহিত্য চর্চার জন্য স্বাধীনভাবে লেখালিখির জন্য, চমৎকার আর্থিক স্বচ্ছন্দ থাকা দরকার এবং তার দরুন মনে যে প্রশান্তি আসে তাতে সাহিত্য চর্চা আরও প্রসন্ন হয়। সেক্ষেত্রে যাদের কাছে পুঁজি আছে, প্রতিপত্তি আছে তারা যদি এগিয়ে আসে তাহলে বিষয়টা সহজ হয়, যা ইউল্যাবের ক্ষেত্রে সম্ভব হয়েছে, তাই আমি ইউল্যাব কর্তৃপক্ষকে অভিনন্দন জানাই।'

সমাপনী বক্তব্যে ইউল্যাব বোর্ড অব ট্রাস্টিজের উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. সামসাদ মর্তূজা বলেন, 'বাংলা বিভাগ যে জ্ঞান চর্চা করবে, সেই জ্ঞান ইংরেজিতে অনূদিত হবে। আমাদের ছাত্ররা চাইলে মিডিয়া স্টাডিজ পড়তে পারবে, বাণিজ্য বিষয়ে পড়তে পারবে, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক পড়তে পারবে। জ্ঞানের যে কোনো সীমা হয় না, আমরা সেটা উদযাপন করতে চাই।

Comments

The Daily Star  | English

MV Abdullah passing through high-risk piracy area

Precautionary safety measures in place, Italian Navy frigate escorting it

49m ago