ছাত্র ইউনিয়ন নেতাদের খুঁজে খুঁজে হামলার অভিযোগ ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে

ঢাবি ছাত্রলীগের সভাপতি তানভীর হাসান সৈকত দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘আমরা আমাদের প্রধানমন্ত্রীর ফেস্টুনকেই নিরাপত্তা দিতে পারিনি, ছাত্র ইউনিয়ন নেতাকর্মীদের নিরাপত্তা দেবো কীভাবে?’
ছাত্র ইউনিয়নের নেতাদের ওপর হামলা
ছাত্রলীগের হামলায় আহত ছাত্র ইউনিয়নের নেতারা ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নেন। ছবি: সংগৃহীত

আবারও ছাত্র ইউনিয়নের নেতাদের ওপর হামলা চালানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুর দেড়টার দিকে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের হামলায় ছাত্র ইউনিয়নের চার নেতা আহত হয়েছেন।

তারা হলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি মেঘমল্লার বসু, সাধারণ সম্পাদক মঈন আহমেদ, ঢাকা মহানগর শাখার সহ-সাধারণ সম্পাদক শুভ্র ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের নেতা শাহরিয়ার শিহাব।

আহতদের মধ্যে চারজনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে বলে ছাত্র ইউনিয়ন সূত্রে জানা গেছে।

শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করার পর টিএসসি থেকে আড্ডা দিয়ে ফেরার পথে শাহবাগ, টিএসসি ও ভিসি চত্বরে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনার দুদিন আগেও ছাত্র ইউনিয়নের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা করেছিল ছাত্রলীগ

মেট্রোরেলের স্টেশন উদ্বোধন উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে রাজু ভাস্কর্যের সামনে ছাত্রলীগের টানানো ব্যানার ছিঁড়ে ফেলের অভিযোগ তোলা হয় ছাত্র ইউনিয়নের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে।

ছাত্রলীগ দাবি করে, বামপন্থী নেতারাই শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়ে টানানো ব্যানার ছিঁড়ে ফেলেন।

ওই দিন দ্য ডেইলি স্টারকে ঢাবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তানভীর হাসান সৈকত বলেন, তারা ছাত্র ইউনিয়ন নেতাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে আহ্বান জানাবেন।

ঢাবি ছাত্র ইউনিয়নের দপ্তর সম্পাদক নিনাদ খান বলেন, 'আমরা শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে টিএসসিতে একত্রিত হয়েছিলাম। সেখান থেকে ফেরার পথে আমাদেরকে খুঁজে খুঁজে বিভিন্ন জায়গায় হামলা চালিয়েছে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসের মতো মহান দিনে ছাত্রলীগের সন্ত্রাসী ও নৃশংস হামলা প্রমাণ করে যে কারা আসলেই মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধে শক্তি।'

ঢাবি ছাত্র ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মঈন আহমেদও বলেন, 'তানভীর হাসান সৈকত আগেও আমাদেরকে হুমকি দিয়ে হামলা চালিয়েছে। শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে আমাদের ওপর হামলা চালিয়ে তারা প্রমাণ করেছে তারা সন্ত্রাসী সংগঠন।'

ওই দিন ঢাবি ছাত্রলীগের সভাপতি তানভীর হাসান সৈকত দাবি করেন, 'ব্যানার ছেঁড়ার চেষ্টা করা বাম নেতাকর্মীদের প্রতিরোধ করেছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা।'

জানা গেছে, আজকের হামলায় ঢাবি ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি মেঘমল্লার বসুকে পিটিয়ে জখম করা হয়েছে এবং ধারালো অস্ত্র দিয়ে তার চোখে আঘাত করা হয়েছে। এ ছাড়া, ঢাবি ছাত্র ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মাঈন আহমেদকেও বেধড়ক পেটানো হয়েছে এবং তার মাথায় গুরুতর আঘাত লেগেছে।

ঢাকা মহানগর ছাত্র ইউনিয়নের সহকারী সাধারণ সম্পাদক তাহমিদ তাজওয়ার শুভ্র এবং বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সংসদের সংগঠক শাহরিয়ার শিহাবও তাদের হামলায় আহত হয়েছেন।

ছাত্র ইউনিয়নের নেতাকর্মীদের ওপর হামলার অভিযোগ সম্পর্কে জানতে চাইলে ঢাবি ছাত্রলীগের সভাপতি তানভীর হাসান সৈকত দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, 'আমরা আমাদের প্রধানমন্ত্রীর ফেস্টুনকেই নিরাপত্তা দিতে পারিনি, ছাত্র ইউনিয়ন নেতাকর্মীদের নিরাপত্তা দেবো কীভাবে?'

তিনি বলেন, 'প্রধানমন্ত্রী আমাদের আবেগের জায়গা। সাধারণ শিক্ষার্থীরা ছাত্র ইউনিয়নের প্রতি ক্ষুব্ধ। আগামীতে তাদের নিরাপত্তা আমরা দিতে পারব না। তাদেরকে আহ্বান জানাচ্ছি অনতিবিলম্বে প্রধানমন্ত্রীর ফেস্টুন ছেঁড়ার জন্য তাদেরকে অফিসিয়ালি ক্ষমা চাইতে হবে।'

Comments

The Daily Star  | English

Invest in Bangladesh, PM tells Indian businesspersons

Prime Minister Sheikh Hasina today invited Indian businesspersons to invest in Bangladesh, stating that she prioritises neighbouring countries

2h ago