বন্যপ্রাণী

চট্টগ্রামে পাচারের সময় ৫ মুখপোড়া হনুমান উদ্ধার

বর্তমানে বন্যপ্রাণী পাচারের প্রধান রুটে পরিণত হয়েছে চট্টগ্রাম। বেশিরভাগ দুর্লভ বন্যপ্রাণী আলী কদম থেকে সংগ্রহ করে চট্টগ্রাম থেকে সাতক্ষীরা ও যশোর জেলা হয়ে ভারতে পাঠানো হচ্ছে।
উদ্ধারকৃত মুখপোড়া হনুমান। ছবি: এফ এম মিজানুর রহমান/স্টার

পাচারের সময় চট্টগ্রামের বাকলিয়া এলাকা থেকে বিরল প্রজাতির পাঁচটি মুখপোড়া হনুমান উদ্ধার করেছে পুলিশ।

এ ঘটনায় তিন পাচারকারীকে আটক করা হয়েছে। তারা হলেন মো. সেলিম (৫৩), সালাউদ্দিন কাদের (৩৫) ও নুরুল কবির (৩১)।

এর আগে গত ৩০ অক্টোবর বান্দরবানের আলীকদম থেকে আনা দুটি বিলুপ্তপ্রায় হগ ব্যাজার (গোরখোদক) উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশ কর্মকর্তাদের ভাষ্য, বর্তমানে বন্যপ্রাণী পাচারের প্রধান রুটে পরিণত হয়েছে চট্টগ্রাম। বেশিরভাগ দুর্লভ বন্যপ্রাণী আলী কদম থেকে সংগ্রহ করে চট্টগ্রাম থেকে সাতক্ষীরা ও যশোর জেলা হয়ে ভারতে পাঠানো হচ্ছে।

এ ব্যাপারে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) দক্ষিণ জোনের উপ-কমিশনার (ডিসি) মোস্তাফিজুর রহমান আজ শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, 'মুখপোড়া হনুমানগুলো আলী কদম থেকে সংগ্রহ করে পরে কক্সবাজারে নিয়ে যাওয়া হয়। কক্সবাজারের শাপলাপুর এলাকা থেকে তা নিয়ে ঢাকায় অন্য একটি দলের কাছে হস্তান্তরের কথা ছিল আটকৃতদের।'

তিনি আরও বলেন, 'আমরা জানতে পেরেছি যে আটককৃতরা আন্তর্জাতিক বন্যপ্রাণী পাচার চক্রের সক্রিয় সদস্য।'

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, হনুমানসহ আটক মো. সেলিমকে গত ২৪ মে বাঁশখালী থানা পুলিশ চারটি হর্নবিল পাখিসহ গ্রেপ্তার করে। এতে তার ছয় মাসের কারাদণ্ড হয়। পরে জামিন নিয়ে কারাগার থেকে বেরিয়ে আসেন তিনি।

উদ্ধার করা হনুমানগুলো বন বিভাগের কর্মকর্তাদের কাছে হস্তান্তর করা হবে জানিয়ে সংবাদ সম্মেলনে আরও বলা হয়, 'আসামিদের বিরুদ্ধে বন্যপ্রাণী (সংরক্ষন ও নিরাপত্তা) আইন ২০১২ মোতাবেক ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।'

Comments