গাজায় প্রতি ১০ মিনিটে এক শিশু নিহত: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

‘গাজার ৩৬ টি হাসপাতালের অর্ধেক এবং প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রগুলোর দুই-তৃতীয়াংশই এখন বন্ধ। এছাড়া এখনও যেসব হাসপাতাল ও প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্র চালু রয়েছে, সেগুলোরও যথেষ্ট সক্ষমতা নেই। স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থা ভঙ্গুর হয়ে পড়েছে।’
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক তেদরোস আধানম গেব্রেয়াসুস। ছবি: সংগৃহীত

গাজা উপত্যকায় গড়ে প্রতি ১০ মিনিটে এক শিশু নিহত হচ্ছে বলে জানিয়েছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক তেদরোস আধানম গেব্রেয়াসুস।

রয়টার্স জানায়, শুক্রবার জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদকে সতর্ক করে তিনি বলেছেন, গাজায় এখন 'কোনো জায়গাই নিরাপদ নয় এবং কেউই নিরাপদে নেই'।

তিনি আরও বলেন, 'গাজার ৩৬ টি হাসপাতালের অর্ধেক এবং প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রগুলোর দুই-তৃতীয়াংশই এখন বন্ধ। এছাড়া এখনও যেসব হাসপাতাল ও প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্র চালু রয়েছে, সেগুলোরও যথেষ্ট সক্ষমতা নেই। স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থা ভঙ্গুর হয়ে পড়েছে।'

১৫ সদস্যের নিরাপত্তা পরিষদে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক আরও বলেন, 'হাসপাতালের করিডোরগুলোতে আহত, অসুস্থ, মৃত ব্যক্তি ভিড়। মর্গ উপচে পড়ছে। অ্যানেস্থেসিয়া ছাড়াই অস্ত্রোপচার হচ্ছে। হাজার হাজার ঘরহারা মানুষ হাসপাতালে আশ্রয় নিচ্ছেন।'

তিনি আরও বলেন, ৭ অক্টোবর থেকে গাজা ও পশ্চিম তীরে স্বাস্থ্য কেন্দ্রগুলোতে ২৫০টিরও বেশি হামলার খবর পেয়েছে ডব্লিউএইচও। অন্যদিকে ইসরায়েলি স্বাস্থ্য কেন্দ্রগুলোতেও ২৫টি হামলা হয়েছে।

ইসরায়েলি বাহিনীর দাবি, হামাসের সদস্যরা হাসপাতালের নিচে সুড়ঙ্গে অস্ত্র লুকিয়ে রেখেছে। যদিও এ অভিযোগ অস্বীকার করেছে হামাস।

ইসরায়েলের জাতিসংঘের রাষ্ট্রদূত গিলাদ এরদান নিরাপত্তা পরিষদকে জানান, ইসরায়েল দক্ষিণ গাজায় হাসপাতাল স্থাপনের জন্য একটি টাস্কফোর্স তৈরি করেছে।

Comments