আলোচিত-সমালোচিত হেনরি কিসিঞ্জার ১০০ বছর বয়সে মারা গেলেন

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন’র প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে সবচেয়ে প্রভাবশালী ও বিতর্কিত পররাষ্ট্রনীতিবিষয়ক ব্যক্তি কিসিঞ্জার তরুণ বয়সে জার্মানির নাৎসি বাহিনীর হাত থেকে প্রাণে বেঁচে যান। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা ছিলেন।
হেনরি কিসিঞ্জার
হেনরি কিসিঞ্জার। ছবি: রয়টার্স ফাইল ফটো

বিরোধীদের কাছে 'যুদ্ধবাজ' হিসেবে ঘৃণিত যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী হেনরি কিসিঞ্জার ১০০ বছর বয়সে মারা গেছেন।

গতকাল বুধবার তিনি কানেকটিকাট অঙ্গরাজ্যে নিজ বাড়িতে মারা যান।

কিসিঞ্জারের পরামর্শক প্রতিষ্ঠান কিসিঞ্জার অ্যাসোসিয়েটস তার মৃত্যুর সংবাদ গণমাধ্যমকে জানালেও মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে কিছু জানায়নি।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন'র প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে সবচেয়ে প্রভাবশালী ও বিতর্কিত পররাষ্ট্রনীতিবিষয়ক ব্যক্তি কিসিঞ্জার তরুণ বয়সে জার্মানির নাৎসি বাহিনীর হাত থেকে প্রাণে বেঁচে যান। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা ছিলেন।

এতে আরও বলা হয়, ১৯৭০ এর দশকে মার্কিন পররাষ্ট্রনীতির অপর নাম ছিল 'হেনরি কিসিঞ্জার'। ভিয়েতনাম যুদ্ধ বন্ধে উদ্যোগ নেওয়ায় তাকে নোবেল শান্তি পুরস্কার দেওয়া হয়। সমালোচকরা বলেন, কিসিঞ্জার মূলত ভিয়েতনামে মার্কিন বাহিনীর পরাজয় ঠেকাতে যুদ্ধ বন্ধের উদ্যোগ নিয়েছিলেন।

কিন্তু, ভিয়েতনাম যুদ্ধের সময় প্রতিবেশী কম্বোডিয়ায় নির্বিচার বোমা বর্ষণের অভিযোগে তিনি নিন্দিত।

এ ছাড়াও, দক্ষিণ আমেরিকার দেশ চিলিতে সামরিক বাহিনীর হাতে নির্বাচিত সরকারের উৎখাতে সমর্থন দেন কিসিঞ্জার। এ কারণে তার নিন্দা বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়ে।

মধ্যপ্রাচ্যে আরব-ইসরায়েল সংঘাত বিস্তারে ও ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতাযুদ্ধে নেতিবাচক ভূমিকার জন্যও কিসিঞ্জার সমালোচিত।

Comments