দক্ষিণ এশিয়া

ইমরান খানের ৬ মাসের জেল হতে পারে: সাবেক প্রধান বিচারপতি

আদালত অবমাননার দায়ে ৬ মাসের কারাদণ্ড পেতে পারেন তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) দলের চেয়ারম্যান ইমরান খান।
জনসভায় বক্তব্য রাখছেন পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। ফাইল ছবি: এএফপি
জনসভায় বক্তব্য রাখছেন পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। ফাইল ছবি: এএফপি

আদালত অবমাননার দায়ে ৬ মাসের কারাদণ্ড পেতে পারেন তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) দলের চেয়ারম্যান ইমরান খান।

পাকিস্তানের সিন্ধু প্রদেশের সাবেক প্রধান বিচারপতি (অবসরপ্রাপ্ত) শাইক উসমানি এমনই মত প্রকাশ করেছেন বলে আজ মঙ্গলবার পাকিস্তানের গণমাধ্যম জিও টিভির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

সাবেক এই বিচারপতি আরও জানান, অভিযোগ প্রমাণিত হলে ইমরান খান পরবর্তী ৫ বছর কোনো নির্বাচনে অংশগ্রহণের যোগ্যতা হারাবেন।

'ইমরান খানের আদালত অবমাননার মামলাটি অন্যান্য অবমাননা মামলা থেকে ভিন্ন। তিনি একজন বিচারকের নাম উল্লেখ করে বলেছেন, তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবেন', যোগ করেন উসমানি।

সিন্ধু রাজ্যের সাবেক প্রধান বিচারপতি উসমানি আরও বলেন, 'যদি কোনো আদালত আপনার বিরুদ্ধে রায় দেন, আপনি সেই রায়ের সমালোচনা করতে পারেন। কিন্তু বিচারকের নয়।'

ইমরান খান ঝোঁকের বশে বড় একটি ভুল করে নিজেকে বিপদে ফেলেছেন বলে মত প্রকাশ করেন তিনি।

ইমরানের বিরুদ্ধে মামলা

ইসলামাবাদের এফ-নাইন পার্কের এক সমাবেশে একজন অতিরিক্ত দায়রা জজ ও পুলিশের জ্যেষ্ঠ সদস্যদের বিরুদ্ধে হুমকির অভিযোগে ইমরান খানের বিরুদ্ধে সন্ত্রাস-দমন আইনে এফআইআর করা হয়।

ম্যাজিস্ট্রেট আলি জাভেদের অভিযোগের ভিত্তিতে মারগালা থানায় সন্ত্রাস দমন আইনের ৭ নম্বর ধারা অনুযায়ী এফআইআর করা হয়।

এফআইআরে বলা হয়েছে, ইমরান খান এফ-নাইন পার্কে আয়োজিত সমাবেশে অতিরিক্ত দায়রা জজ জেবা চৌধুরী ও পুলিশ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে হুমকি দেন, যেটি এক ধরনের 'সন্ত্রাস'। এই হুমকির পেছনে মূল উদ্দেশ্য ছিল পুলিশ ও বিচার বিভাগের কর্মকর্তাদের তাদের দায়িত্ব পালনে বাঁধা দেওয়া।

এফআইআরে আরও বলা হয়, ইমরান খান বক্তৃতার মাধ্যমে দেশের মানুষের মনে ভীতি ও গোলযোগ সৃষ্টির চেষ্টা করেছেন।

ইমরান খান যা বলেছেন

এফ-নাইন পার্কে আয়োজিত জনসমাবেশে বক্তব্যে ইমরান খান সতর্ক করেন, তিনি ইসলামাবাদ পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজি), উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) ও নারী ম্যাজিস্ট্রেটকে 'ছেড়ে দেবেন না'। তিনি শাহবাজ গিলের ওপর নির্যাতনের জন্য উল্লেখিত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মামলা করার প্রতিশ্রুতি দেন।

তিনি আরও বলেন, 'আমরা আইজি ও ডিআইজিকে ছাড়বো না।'

সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান তার বক্তব্যে অতিরিক্ত দায়রা জজ জেবা চৌধুরীর নাম উল্লেখ করেন। জেবা চৌধুরী গত সপ্তাহে ইমরান খানের চিফ অব স্টাফ শাহবাজ গিলকে ২ দিনের পুলিশি রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন মঞ্জুর করেন। ইমরান জেবাকে প্রস্তুতি নিতে বলেন, কারণ তার বিরুদ্ধেও মামলা করা হবে।

ইসলামাবাদের জিরো পয়েন্ট থেকে এফ-নাইন পার্ক পর্যন্ত মিছিলের নেতৃত্ব দেওয়ার সময় পিটিআইর চেয়ারম্যান এই মন্তব্য করেন। কারারুদ্ধ সহকর্মী শাহবাজ গিলের জন্য সমর্থন জানাতে দলের পক্ষ থেকে এই কর্মসূচীর আয়োজন করা হয়।

পিটিআইর মতে, শাহবাজকে পুলিশি হেফাজতে 'অবর্ণনীয় নির্যাতন' করা হয়েছে।

ইমরান আরও জানান, যদি গিলের বিরুদ্ধে মামলা করা যায়, তাহলে নওয়াজ শরীফ, ফজলুর রহমান ও রানা সানাউল্লাহর মতো ব্যক্তিত্বদের বিরুদ্ধেও বিচারিক কার্যক্রম পরিচালনা করা সম্ভব।

'তারা (জোট সরকার) গিলের ওপর নির্যাতন চালিয়ে আমাদেরকে ভয় দেখাতে চাচ্ছে', যোগ করেন ইমরান।

তিনি আরও জানান, এটি দেশের মানুষের জন্য একটি ক্রান্তিলগ্ন।

গতকাল বিচারপতি মহসিন আখতার কায়ানি ও বিচারক বাবর সাত্তারের বেঞ্চ ২৫ আগস্ট পর্যন্ত ইমরানের জামিন মঞ্জুর করেন। তারা ইমরানকে ২৫ আগস্টের মধ্যে একটি দুর্নীতি দমন আদালতের সঙ্গে যোগাযোগ করার নির্দেশ দেন।

 

Comments