মহাখালীতে গ্যাস স্টেশনে আগুন, দগ্ধ ৮

গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে আগুন লেগেছে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে, নাশকতা নয়।
মহাখালীতে আগুন
ভিডিও থেকে নেওয়া ছবি

ঢাকার মহাখালীতে রয়্যাল ফিলিং স্টেশনে অগ্নিকাণ্ডে আট জন দগ্ধ হয়েছেন।

আজ বুধবার রাত ৮টার দিকে আগুনের সূত্রপাত হয়। ফায়ার সার্ভিস কন্ট্রোল রুমের ডিউটি অফিসার রোজিনা আক্তার জানান, রাত ৮টা ৩৬ মিনিটের দিকে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাজহারুল ইসলাম বলেন, গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে আগুন লেগেছে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে, নাশকতা নয়। তদন্তে আগুন লাগার কারণ জানা যাবে।

হাসপাতাল সূত্রগুলো জানায়, আগুনে দগ্ধ আট জনকে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তারা হলেন মামুন শেখ (২৮), মো. রানা (৩০), জীবন (২৬), সালাউদ্দিন (৪৫), আমির হোসেন (৩২), কামাল হোসেন (৫০), আবুল খায়ের (৪০), মাসুম (২৪)।

দগ্ধ মো. মামুন শেখ জানান, তারা সবাই পাম্পের কর্মচারী। রাত ৮টার দিকে তারা যখন কাজ করছিলেন, তখন পাম্পের ভেতর মেইন গ্যাস পাইপ বিকট শব্দে বিস্ফোরিত হয়। তখন আশপাশে থাকা সবাই দগ্ধ হন।

ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা বলছেন, আগুন লাগার কারণ জানতে তদন্ত প্রয়োজন।

শেখ হাসিনা বার্ন ইনস্টিটিউটের আবাসিক সার্জন ডা. তরিকুল ইসলাস জানান, মহাখালী থেকে আট জন দগ্ধ ইনস্টিটিউটে এসেছেন। সবার অবস্থাই আশঙ্কাজনক। অনেকের শরীরের কম অংশ দগ্ধ হলেও আগুনের তীব্রতা অনেক বেশি থাকায় শ্বাসনালী দগ্ধ হয়েছে। সবাইকে ভর্তি রাখা হয়েছে। দুজনকে আইসিইউতে স্থানান্তর করা হবে।

দগ্ধদের মধ্যে মাসুমের ৬০ শতাংশ, রানার ৫ শতাংশ, মামুনের ৫ শতাংশ ,জীবনের ৮ শতাংশ, কামালের ১৫ শতাংশ ও মাথায় আঘাত, সালাউদ্দিনের ৬৫ শতাংশ ও শরীরে আঘাত, আবুল খায়েরের ১৫ শতাংশ ও হাতে আঘাত আছে এবং আমির হোসেনের ৩৫ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে বলে জানান তিনি। 

Comments