অপরাধ ও বিচার

তারেক-জোবায়দার অনুপস্থিতিতেই চলবে দুর্নীতি মামলার বিচারকাজ

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও তার স্ত্রী জোবায়দা রহমানের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনের দায়ের করা একটি মামলায় তাদের অনুপস্থিতিতেই বিচার কাজ চলবে বলে জানিয়েছে ঢাকার একটি আদালত।
তারেক রহমান ও তার স্ত্রী জোবাইদা রহমান। ছবি: সংগৃহীত

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও তার স্ত্রী জোবায়দা রহমানের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনের দায়ের করা একটি মামলায় তাদের অনুপস্থিতিতেই বিচারকাজ চলবে বলে জানিয়েছে ঢাকার একটি আদালত।

ঢাকা মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক মো. আসাদুজ্জামান এ আদেশ দেন।

মামলায় তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের বিষয়ে শুনানির জন্য ২৯ মার্চ দিন ধার্য করেন বিচারক।

এর আগে গত ১৯ জানুয়ারি আদালত এই মামলায় তারেক ও জোবায়দাকে ৬ ফেব্রুয়ারির মধ্যে হাজির হওয়ার জন্য একটি গেজেট প্রকাশ করতে সরকারকে নির্দেশ দেন।

গেজেটের উদ্ধৃতি দিয়ে বিচারক বলেন, এর আগে তাদের বিরুদ্ধে পরোয়ানা দেওয়া হলেও গ্রেপ্তার এড়াতে তারা বিদেশে চলে যাওয়ায় পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

বিচারক পুলিশকে তাদের স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার নির্দেশ দেন এবং পুলিশ তা করতে ব্যর্থ হয়। তাদের উপস্থিতির সুযোগ না থাকায় তাদের অনুপস্থিতিতে তাদের বিরুদ্ধে বিচার চলবে বলে আদেশে বলা হয়েছে।

তারেক ও জোবায়দা ২০০৮ সাল থেকে লন্ডনে রয়েছেন।

২০০৭ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর কাফরুল থানায় তারেক, তার স্ত্রী জোবায়দা ও সৈয়দা ইকবাল মান্দ বানুর বিরুদ্ধে অবৈধ উপায়ে ৪ কোটি ৮২ লাখ টাকার সম্পদ অর্জন এবং ২ কোটি ১৬ লাখ টাকার তথ্য গোপনের অভিযোগে মামলাটি করে দুর্নীতি দমন সংস্থা।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ২০০৯ সালের ৩১ মার্চ ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে ৩ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

তবে ইকবাল মান্দ বানুর বিরুদ্ধে বিচার কার্যক্রম প্রত্যাহার করা হয়।

এর আগে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হয় তারেক রহমানের।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলাসহ আরও ২টি মামলায় তাকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেওয়া হয়েছে।

Comments