সাগর-রুনি হত্যা মামলা: ১০৫ বার পেছাল তদন্ত প্রতিবেদন জমার তারিখ

চলতি বছরের ১৫ অক্টোবর একই আদালত র‌্যাবকে আজকের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলেছিল।
sagar-runi.jpg
সাগর সরওয়ার ও মেহেরুন রুনি। ছবি: সংগৃহীত

সাংবাদিক দম্পতি সাগর সরোয়ার ও মেহেরুন রুনি হত্যা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের সময়সীমা আবারও বাড়িয়েছেন আদালত। এ নিয়ে ১০৫ বারের মতো সময়সীমা বাড়ানো হলো।

আদালত আজ বৃহস্পতিবার আগামী ১৯ ডিসেম্বরের মধ্যে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নকে (র‌্যাব) তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলেছেন।

আদালত সূত্র জানিয়েছে, মামলার তদন্ত কর্মকর্তা র‌্যাবের অতিরিক্ত সুপারিনটেনডেন্ট খন্দকার শফিকুল আলম প্রতিবেদন জমা দিতে ব্যর্থ হলে ঢাকার মহানগর হাকিম মো. শফি উদ্দিন এ আদেশ দেন।

চলতি বছরের ১৫ অক্টোবর একই আদালত র‌্যাবকে আজকের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলেছিল।

এর আগে, দুটি পৃথক আদালত তদন্ত এবং হত্যার পেছনের উদ্দেশ্য উদঘাটন এবং প্রকৃত অপরাধীদের গ্রেপ্তারে তদন্তকারীদের ব্যর্থতার জন্য অসন্তোষ প্রকাশ জানায়।

এ মামলার তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার জন্য ১০৩ বার তারিখ নিয়েও ব্যর্থ হয় র‌্যাব। র‌্যাবের আগে গোয়েন্দা শাখা আরও দুই বার এই মামলার তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে ব্যর্থ হয়। সেটিসহ এই মামলার প্রতিবেদন জমার সময় মোট ১০৫ বার পেছাল।

বেসরকারি টিভি চ্যানেল মাছরাঙার বার্তা সম্পাদক সাগর এবং তার স্ত্রী এটিএন বাংলার সিনিয়র রিপোর্টার রুনিকে ২০১২ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি ভোররাতে রাজধানীর পশ্চিম রাজাবাজারে তাদের ভাড়া করা ফ্ল্যাটে হত্যা করা হয়।

পরদিন রুনির ভাই নওশের আলী রোমান বাদী হয়ে শেরেবাংলা থানায় মামলা করেন।


 

Comments