‘সংসারের বোঝা’ মনে করে মাকে হত্যার দায়ে স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যুদণ্ড

২০১৬ সালের ৩১ অক্টোবর ফাতেমা বেগম ঘুমাতে গেলে তারা দুজন শ্বাসরোধ করে ও গলা কেটে তাকে হত্যা করে।
সিরাজগঞ্জ
স্টার অনলাইন গ্রাফিক্স

বৃদ্ধা মাকে সংসারের বোঝা মনে করে পরিকল্পিতভাবে হত্যার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় সিরাজগঞ্জে স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে আদালত।

আজ মঙ্গলবার সিরাজগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত-৩ এর বিচারক কানিজ ফাতিমা এ রায় দেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন-কাজিপুর উপজেলার রেহাইশুরিব গ্রামের আব্দুস সামাদ (৬৫) ও তার স্ত্রী রাশিদা খাতুন (৬০)।

সিরাজগঞ্জ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) আব্দুর রহমান দ্য ডেইলি স্টারকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

আজ রায়ের সময় আসামিরা আদালতে উপস্থিত ছিলেন বলে জানান তিনি।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, দণ্ডপ্রাপ্ত রাশিদার সঙ্গে তার শাশুড়ি ফাতেমা বেগমের প্রায়ই ঝগড়া হতো। এক পর্যায়ে রাশিদা ও তার স্বামী আব্দুস সামাদ মাকে হত্যার পরিকল্পনা করে।

২০১৬ সালের ৩১ অক্টোবর ফাতেমা বেগম ঘুমাতে গেলে তারা দুজন শ্বাসরোধ করে ও গলা কেটে তাকে হত্যা করে।

এ ঘটনায় নিহতের ছেলে ও সামাদের ভাই আব্দুর রহিম বাদী হয়ে কাজিপুর থানায় মামলা করে।

তদন্তের পর স্বামী-স্ত্রীকে আসামি করে আদালতে চার্জশিট দেয় পুলিশ।  

পাবলিক প্রসিকিউটর আব্দুর রহমান বলেন, 'মাকে সংসারের বোঝা মনে করে হত্যার পরিকল্পনা করে বলে এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছিল। সাক্ষ্য ও প্রমাণের ভিত্তিতে আদালত অভিযুক্ত স্বামী ও স্ত্রীকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন।'

রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করতে চাইলে ৭ দিনের মধ্যে আপিল করতে হবে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

Comments