বগুড়া-৪

‘এবার ভোট দিতে না গেলে সরকারি সুযোগ-সুবিধা সব বন্ধ থাকবে’

এবার যারা ভোট দিতে যাবে না তাদের জন্য সরকারি সব সুযোগ-সুবিধা বন্ধ হয়ে যাওয়ার কথা বলেছেন বগুড়া-৪ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী এবং বিএনপির সাবেক এমপি জিয়াউল হক মোল্লা।

এবার যারা ভোট দিতে যাবে না তাদের জন্য সরকারি সব সুযোগ-সুবিধা বন্ধ হয়ে যাওয়ার কথা বলেছেন বগুড়া-৪ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী এবং বিএনপির সাবেক এমপি জিয়াউল হক মোল্লা।

গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে কাহালু উপজেলার ভালসুন বাজারে নির্বাচনী সভায় দেওয়া ভাষণে এই কথা বলেন তিনি।

নির্বাচনী প্রচারণার ভাষণে এক পর্যায়ে তিনি বলেন, 'এবার যারা ভোট দিতে যাবে না তাদের জন্য সরকারি সব সুযোগ-সুবিধা বন্ধ থাকবে। কি কি সরকারি সুযোগ সুবিধা? যেমন ভিজিডি, ভিজিএফ, বিধবা ভাতা, বয়স্ক-ভাতা এই ধরণের বিভিন্ন ভাতা আছে। সরকার এগুলোর তালিকা করবে (যারা ভোট দিতে যাবে না) এবং এগুলোর সুবিধা থেকে ভবিষ্যতে বঞ্চিত হবে।'

তার এই বক্তব্যের একটি ভিডিও ক্লিপ দ্য ডেইলি স্টারের হাতে এসেছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে জিয়াউল হোক মোল্লা বলেন, 'এটা ভুল হয়ে গেছে। আমি মনে করেছিলাম সরকার এই বিষয়ে নির্দেশনা দিয়েছে। কোন পত্রিকায় বা অনলাইনে এই ধরনের খবর আমি কিছুদিন আগে দেখেছি। তবে আজকে বুঝতে পেরেছি বিষয়টি ভুল ছিল।'

'এটা আমার স্লিপ অফ টাং', বলেন জিয়াউল হক মোল্লা।

জানতে চাইলে বগুড়ার জেলা প্রশাসক এবং রিটার্নিং কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, 'এই ধরনের মিথ্যাচার যদি কেউ করে এবং এর ফলে প্রতিপক্ষ প্রার্থী বা কারো ক্ষতি হলে নির্বাচন অনুসন্ধান কমিটি বিষয়টি দেখবে। বিষয়টি নিয়ে কেউ অভিযোগ করলে বা আমাদের দৃষ্টিগোচর হলে আমারা অনুসন্ধান কমিটিকে দেবো ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য।'

বগুড়া-৪ আসনের বাংলাদেশ কংগ্রেসের প্রার্থী আশরাফুল হোসেন আলম ওরফে হিরো আলম ভিডিওটি ফেসবুকে পোস্ট করে প্রতিবাদ জানিয়েছেন। এ ব্যাপারে তিনি নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ দিবেন বলেন জানান।

জিয়াউল হক মোল্লা সাবেক বিএনপি নেতা এবং এর আগে বিএনপির হয়ে বেশ কয়েকবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। সর্বশেষ ২০০১ সালের নির্বাচনে তিনি এই আসনে বিএনপি থেকে নির্বাচিত হয়েছিলেন।

Comments

The Daily Star  | English
US supports democratic Bangladesh

US supports a prosperous, democratic Bangladesh

Says US embassy in Dhaka after its delegation holds a series of meetings with govt officials, opposition and civil groups

6h ago