টাইম ম্যাগাজিন বলছে, বাংলাদেশে বাকশাল-টু চলছে: মঈন খান

‘এই নির্বাচন করতে গিয়ে সরকার সব কিছু হ-য-ব-র-ল করে ফেলেছে। শুধু নিজেদের প্রার্থীদের নয়, তাদের জোটের প্রার্থী এবং তাদের গৃহপালিত বিরোধী দলের প্রার্থীরা আজকে এই নির্বাচনের সমালোচনা করছে’
টাইম ম্যাগাজিন বলছে, বাংলাদেশে বাকশাল-টু চলছে: মঈন খান
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আবদুল মঈন খান | ছবি: টেলিভিশন থেকে নেওয়া

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে 'ভুয়া নির্বাচন' আখ্যা দিয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আবদুল মঈন খান বলেছেন, এমপি হবে সরকারের সিলেকশনে, ইলেকশনে নয়। ৭ তারিখে তারা এই নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করবে।

তিনি আরও বলেন, কে কোন আসনের সংসদ সদস্য হবেন সেটা ইতোমধ্যে নির্ধারণ করা হয়ে গেছে।

ছাত্রদলের ৪৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আজ সোমবার সকালে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ জিয়াউর রহমানের কবরে শ্রদ্ধা নিবেদন ও ফাতিহা পাঠ শেষে তিনি এ কথা বলেন।

মঈন খান বলেন, 'আমাদের মনে রাখতে হবে, বাংলাদেশের আদর্শের প্রথম কথা হচ্ছে গণতন্ত্র। দুঃখের সঙ্গে বলতে হয়, আজকে স্বাধীনতার ৫২ বছর পরে এসে বাংলাদেশের গণতন্ত্র পুনরায় মৃত।'

আওয়ামী লীগের সমালোচনা করে তিনি বলেন, 'এবার তারা যেটা করেছে—অলিখিত বাকশাল। নিউইয়র্ক থেকে প্রকাশিত বিশ্বের সবচেয়ে নামি-দামি নিউজ ম্যাগাজিন টাইম বলেছে, বাংলাদেশে এখন যেটা চলছে তার নাম হচ্ছে বাকশাল-টু।'

বিএনপি ক্ষমতার জন্য রাজনীতি করে না মন্তব্য করে দলটির এই নেতা বলেন, 'শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান বলেছিলেন, জনগণই সকল ক্ষমতার উৎস। সেই জনগণকে সম্পৃক্ত করে আমরা ২০২২ সালের অক্টোবর থেকে বাংলাদেশের বিভিন্ন বিভাগে, বিভিন্ন জেলায়, বিভিন্ন উপজেলায়; এমনকি একদিনে বাংলাদেশের ছয় হাজার ইউনিয়ন পরিষদে জনসংযোগ, পদযাত্রা, শোভাযাত্রা, প্রতীকী অনশন করেছি। সকল প্রকাশ শান্তিপূর্ণ প্রক্রিয়ায় আমরা প্রতিবাদ জানিয়েছি। কারণ আমরা গণতন্ত্রে বিশ্বাস করি।'

তিনি বলেন, 'গত ২৮ অক্টোবর আপনারা দেখেছেন, কীভাবে আমাদের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে ক্র্যাক ডাউন করা হয়েছে। ক্র্যাক ডাউন আমার কথা নয়, বিশ্বের যত নামি-দামি পত্রিকা, মিডিয়াতে বলা হয়েছে যে, সরকার একটি শান্তিপূর্ণ সমাবেশের ওপর ক্র্যাক ডাউন করেছে। কারণ তারা তাদের অলিখিত বাকশাল, একদলীয় সরকারকে তারা দীর্ঘস্থায়ী করতে চায়।'

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ভুয়া নির্বাচন আখ্যা দিয়ে মঈন খান বলেন, 'এই নির্বাচন করতে গিয়ে সরকার সব কিছু হ-য-ব-র-ল করে ফেলেছে। শুধু নিজেদের প্রার্থীদের নয়, তাদের জোটের প্রার্থী এবং তাদের গৃহপালিত বিরোধী দলের প্রার্থীরা আজকে এই নির্বাচনের সমালোচনা করছে। আমাদের কোনো কিছু বলার প্রয়োজন নেই।

'আমি বলেছি, নির্বাচন সরকার ইতোমধ্যে করে ফেলেছে। ঢাকায় রাজধানীতে বসে কে কোন সিলের এমপি হবে এটি ইতোমধ্যে নির্ধারিত হয়ে গেছে। কাজেই এই নির্বাচন একটি ভুয়া নির্বাচন। এই নির্বাচনে জনগণের কোনো প্রতিনিধি কেউ এমপি হবে না। এমপি হবে সরকারের সিলেকশনে, ইলেকশনে নয়। ৭ তারিখে তারা এই নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করবে,' যোগ করেন তিনি।

Comments

The Daily Star  | English

Hefty power bill to weigh on consumers

The government has decided to increase electricity prices by Tk 0.34 and Tk 0.70 a unit from March, which according to experts will have a domino effect on the prices of essentials ahead of Ramadan.

5h ago