নির্বাচন

ব্রাহ্মণবাড়িয়া উপনির্বাচন: ভোটারের জন্য অপেক্ষা

বিএনপির সংসদ সদস্যদের পদত্যাগের কারণে শূন্য হওয়া ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের উপনির্বাচন আজ বুধবার সকাল থেকে একেবারে হাতেগোনা কয়েকজন ভোটারের উপস্থিতির মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া উপনির্বাচন
ভোটার শূন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার অন্নদা সরকারি উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্র। ছবি: মাসুক হৃদয়/স্টার

বিএনপির সংসদ সদস্যদের পদত্যাগের কারণে শূন্য হওয়া ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের উপনির্বাচন আজ বুধবার সকাল থেকে একেবারে হাতেগোনা কয়েকজন ভোটারের উপস্থিতির মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে।

আজ সকাল সাড়ে ৮টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে চলবে বিকাল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত।

সকাল ৯টার দিকে এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার সংবাদ পাওয়া যায়নি।

সকাল ৯টার দিকে সরাইল উপজেলা সদরের অন্নদা সরকারি উচ্চবিদ্যালয় ও উচালিয়াপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে গিয়ে ভোটার দেখা যায়নি। সেখানে শুধু এজেন্ট, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য ও নির্বাচন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সকাল ৯টা পর্যন্ত অন্নদা সরকারি উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রের ৭ বুথে একটি ভোটও পড়েনি।

চুন্টা দক্ষিণ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের ৮ বুথে সকাল ৯টা পর্যন্ত ৯ ভোট পড়েছে। এ ২ কেন্দ্রে ভোটার সংখ্যা ৬ হাজার ৭৫৯।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ উপনির্বাচনে প্রার্থীরা হলেন—বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য ও বর্তমানে বহিষ্কৃত বিএনপি নেতা উকিল আব্দুস সাত্তার ভূঁইয়া, জাতীয় পার্টির প্রার্থী আব্দুল হামিদ খান ভাসানী, জাকের পার্টির প্রার্থী জহিরুল ইসলাম জুয়েল ও স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক বিএনপি নেতা আবু আসিফ আহমেদ।

সরাইল ও আশুগঞ্জ উপজেলা নিয়ে গঠিত এ আসনটিতে ভোটার আছেন ৩ লাখ ৭৩ হাজার ৩১৯ জন।

চলমান সরকারবিরোধী আন্দোলনের অংশ হিসেবে গত ১০ ডিসেম্বর বিএনপির সংসদ সদস্যরা সংসদ থেকে পদত্যাগ করেন। এর পরদিনই দল থেকে পদত্যাগ করেন ৫ বারের সংসদ সদস্য ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী উকিল আব্দুস সাত্তার ভূঁইয়া। পরে শূন্য আসনগুলোয় ১ ফেব্রুয়ারি ভোটের তারিখ নির্ধারণ করে নির্বাচন কমিশন।

নির্বাচন শান্তিপূর্ণভাবে শেষ করতে র‌্যাবের ১০ টিম, ১ হাজার ১০০ পুলিশ সদস্য, ৪ প্লাটুন বিজিবি ও ১ হাজার ৫৮৪ আনসার সদস্য মোতায়েন থাকার কথা জানিয়েছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক মো. শাহগীর আলম।

Comments