বাংলাদেশ

আশা করি ক্যানসার প্রতিরোধে রাষ্ট্রীয় উদ্যোগ বাড়বে: সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী

ক্যানসার সার্ভাইবার দিবস উপলক্ষে শনিবার বিকেলে এক অনুষ্ঠানে তিনি এ আশা প্রকাশ করেন।
অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী
ক্যানসার সার্ভাইবার দিবস উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বক্তব্য দিচ্ছেন অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী। ছবি: সংগৃহীত

ইমেরিটাস অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বলেছেন, 'ক্যানসারের ক্ষেত্রে যেমন কেয়ার দরকার, শুধু পরিবার নয়, পুরো সমাজ যেন বিষয়টি জানে, সেটি গুরুত্বপূর্ণ। আমরা আশা করব, ক্যানসার প্রতিরোধ ও নিরাময়ে রাষ্ট্রীয় উদ্যোগ বাড়বে।'

ক্যানসার সার্ভাইবার দিবস উপলক্ষে শনিবার বিকেলে বাংলা একাডেমির কবি শামসুর রাহমান অডিটোরিয়ামে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

ক্যানসার কেয়ার কমিউনিটি বাংলাদেশ আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে ১০ জন ক্যানসার সার্ভাইবারকে সম্মাননা দেওয়া হয়। তারা হলেন—উদ্যোক্তা ও প্রশিক্ষক ড. রুবিনা হক, আইনজীবী ও ক্যানসার সংগঠক দেবাহুতি চক্রবর্তী, গৃহিনী ও ক্যানসার সংগঠক তাহমিনা গাফফার, চিকিৎসক মো. সালেহ উদ্দিন মাহমুদ তুষার, ব্যবসায়ী খুজিস্তা নূর ই নাহারিন মুন্নি, অনুবাদক ও লেখক অদিতি ফাল্গুনী, চলচ্চিত্র নির্মাতা ও শিক্ষক রফিকুল আনোয়ার রাসেল, শিক্ষক ড. জেসমিন পারভিন সীমা, সরকারি চাকুরিজীবী ও ক্যানসার সংগঠক নূর-এ-শাফী আহনাফ এবং ক্লিনিক্যাল ডায়েটিশিয়ান অ্যান্ড নিউট্রিশনিস্ট আনিকা তাহিসীন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, 'যারা ক্যানসার রোগ থেকে সার্ভাইব করেছেন, তারা যুদ্ধে জয়ী হয়েছেন। আপনাদের কষ্ট অন্যদের বোঝানো যাবে না। আগে একসময় এই রোগে মৃত্যু অবধারিত ভাবা হতো। সেটা এখন কমেছে। তবে এখনো ব্যয়বহুল।'

তিনি বলেন, '৩২ বছর আগে আমার স্ত্রী এই রোগে মৃত্যুবরণ করছেন। তবে ক্যানসার রোগের চিকিৎসা এতদিনে অনেক উন্নতি হয়েছে। আমার স্ত্রীর সময় চিকিৎসাব্যবস্থা অনেক পিছিয়ে ছিল। ক্যানসার শনাক্ত হওয়ার পরদিনই পিজি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিল। কিন্তু অপারেশনের সিরিয়াল পেয়েছিলাম চার সপ্তাহ পর।'

অনুষ্ঠানে ক্যানসার চিকিৎসায় প্যালিয়েটিভ কেয়ারের চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. নিজাম উদ্দিন আহমেদ বলেন, 'ক্যানসার হলো শ'দুয়েক রোগের সমাহার। সবগুলোকে মিলিয়ে নাম দেওয়া হয়েছে ক্যানসার। এর মধ্যে কিছু আছে অল্প চিকিৎসা পেলেই ভালো হয়ে যায়, কিছু আছে ৫ বছরে। কিছু আছে প্রথাগত চিকিৎসায় ভালো হয় না। কিন্তু আরোগ্য হয় না, সে ব্যাপারে বলি না। আমার মতো অধ্যাপকরাও উচ্চারণ করি "আর কিছু করার নেই, বাড়ি নিয়ে যান"। এটি করার কোনো নৈতিক, ধর্মীয়, আইনগত কোনো অধিকার নেই।'

ক্যানসার কেয়ার কমিউনিটি বাংলাদেশের উপদেষ্টা অধ্যাপক হাবিবুল্লাহ তালুকদার রাসিকিন বলেন,'পৃথিবী অনেকদূর চলে গেছে। ক্যানসার থেকে সুরক্ষা দেওয়ার সেবা থেকে শুরু হয় ক্যানসার সেবা। শুধু আক্রান্ত হলেই যে চিকিৎসা দেওয়া হবে—এভাবে চলে না। সবার আগে ক্যানসার কন্ট্রোল স্ট্র‍্যাটেজি হোক।'

Comments