আসামি ছিনিয়ে নিতে পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি, ‘গুলিতে’ নিহত ১

আহত হয়েছেন ১০ ‍পুলিশ সদস্য।
স্টার অনলাইন গ্রাফিক্স

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলায় আসামিকে গ্রেপ্তারে গিয়ে পুলিশের ওপর হামলা ও আসামি ছিনিয়ে নেওয়ার সময় গুলিতে একজন মারা গেছেন।

পুলিশ জানিয়েছে, আসামি পক্ষের লোকজনের হামলায় আহত হয়েছেন ১০ ‍পুলিশ সদস্য।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শাখাওয়াত হোসেন জানান, আজ বৃহস্পতিবার ভোরে বিজয়নগর উপজেলার পত্তন ইউনিয়নের আদমপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

গুলিতে নিহত ব্যক্তি আইয়ূব নূর (৫৫) আদমপুর গ্রামের বাসিন্দা ও আসামি আরিফ ভূঁইয়ার বাবা।

পুলিশ সুপার দ্য ডেইলি স্টারকে জানান, মাদকসহ পাঁচ মামলার আসামি আরিফ ভূঁইয়ার (৩০) নামে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা থাকায় তাকে ধরতে উপ-পরিদর্শক সাইদুলের নেতৃত্বে একদল পুলিশ আদমপুর গ্রামে যায়। পুলিশ সদস্যরা বাড়িতে পৌঁছে আরিফকে আটকের পরই তাকে ছিনিয়ে নিতে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে পুলিশের ওপর হামলা চালায় ওই বাড়ির লোকজন। এসময় পুলিশ আট রাউন্ড গুলি ছোড়ে।

নিহতের স্বজনদের দাবি, ভোররাত সাড়ে ৩টার দিকে বাড়িতে ফাঁকা গুলি করে আরিফকে নিতে আসে কিছু মানুষ। পুলিশ কিনা বুঝতে না পেরে ডাকাত সন্দেহে তারা এগিয়ে আসে। এসময় পুলিশের ছোড়া গুলিতে আরিফের বাবা আইয়ূব নূরসহ আরও কয়েকজন আহত হন। আইয়ুবকে জেলা সদর হাসপাতালে নেয়ার পথে তিনি মারা যান।

বিজয়নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রাজু আহম্মেদ জানান, এ ঘটনায় ১০ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। তাদেরকে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

Comments