বাংলাদেশ

জাতি শামছুজ্জামান সেলিমের অবদান চিরদিন শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করবে: সিপিবি

আগামীকাল শনিবার শামছুজ্জামান সেলিমের মরদেহ নিজ বাড়ি পাবনার ইশ্বরদীতে নিয়ে যাওয়া হবে।
ছবি: সংগৃহীত

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ক্ষেতমজুর সমিতির সাবেক সভাপতি প্রয়াত শামছুজ্জামান সেলিমের প্রতি আজ শুক্রবার বিকেলে ৪টায় সিপিবি কার্যালয়ের সামনে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

তাকে শ্রদ্ধা জানাতে দলের শত শত সদস্য-সমর্থক-শুভানুধ্যায়ী ও রাজনৈতিক দলের নেতারা সেখানে যান।

এর আগে আজ দুপুরে মোহাম্মদপুর মসজিদে শামছুজ্জামান সেলিমের প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। বিকেলে হিমঘর থেকে তার মরদেহ সিপিবির কেন্দ্রীয় অফিস মুক্তিভবনে নিয়ে যাওয়া হয়।

সেখানে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সিপিবির সভাপতি মোহাম্মদ শাহ আলম ও সাধারণ সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স, সিপিবির সাবেক সভাপতি ও উপদেষ্টা মনজুরুল আহসান খান, সাবেক সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, সহকারী সাধারণ সম্পাদক কমরেড মিহির ঘোষ, ক্ষেতমজুর সমিতির সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন রেজা বক্তব্য দেন।

সিপিবির সভাপতি মোহাম্মদ শাহ আলম বলেন, 'তরুণ বয়সে শ্রমিকদের সংগঠিত করা শামছুজ্জামান সেলিম পরবর্তীকালে মুক্তিযুদ্ধে এবং বাংলাদেশের সবচেয়ে দরিদ্র জনগোষ্ঠী শ্রমিক ও ক্ষেতমজুর আন্দোলন এবং বিপ্লবী পার্টি গড়ে তোলায় আত্মনিয়োগ করেন। জাতি তার অবদান চিরদিন শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করবে।'

তিনি বলেন, 'শামছুজ্জামান সেলিমের মৃত্যুতে কমিউনিস্ট আন্দোলনের এক সূর্য অস্তমিত হলো। তিনি ছিলেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট আদর্শের প্রতীক। তিনি হাজার হাজার তরুণকে কমিউনিস্ট আদর্শ ও আন্দোলনে উদ্বুদ্ধ করেছেন। তার দেখানো আদর্শের পথ ধরেই কমিউনিস্ট পার্টি বিপ্লবী আন্দোলনকে এগিয়ে নেবে।'

সিপিবির সাধারণ সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স বলেন, 'জাতি শামছুজ্জামান সেলিমের মৃত্যুতে একজন শ্রেষ্ঠ সন্তানকে হারাল। যিনি ব্যক্তি-গোষ্ঠী স্বার্থ উপেক্ষা করে মানবমুক্তির স্বপ্ন দেখেছেন এবং তা বাস্তবায়নের জন্য জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত লড়াই করে গেছেন।'

এরপর বিভিন্ন দল, সংগঠন ও ব্যক্তির পক্ষ থেকে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করা হয়। সিপিবির কেন্দ্রীয় কমিটিসহ বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা কমিটি ছাড়াও অন্যান্য গণসংগঠন শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করে।  

শামছুজ্জামান সেলিমের প্রতি আরও শ্রদ্ধা নিবেদন করে ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র, ক্ষেতমজুর সমিতি, কৃষক সমিতি, ছাত্র ইউনিয়ন, যুব ইউনিয়ন, কেন্দ্রীয় খেলাঘর আসর, গণতান্ত্রিক আইনজীবী সমিতি, ইঞ্জিনিয়ার্স অ্যান্ড আর্কিটেক্টস ফর এনভায়রনমেন্ট ডেভেলপমেন্ট, হকার্স ইউনিয়ন, প্রাইভেট কার অ্যান্ড ড্রাইভারস ইউনিয়ন।

এ ছাড়া বাম গণতান্ত্রিক জোট, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি, বাসদ, গণসংহতি আন্দোলন, বাংলাদেশ জাসদ, গণতন্ত্রী পার্টি, সাম্যবাদী আন্দোলন, বাসদ (মার্কসবাদী), বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি, কমিউনিস্ট লীগ, ন্যাপ-ছাত্র ইউনিয়ন-কমিউনিস্ট পার্টি গেরিলা বাহিনী শ্রদ্ধা নিবেদন করে।

শ্রদ্ধা নিবেদন অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সিপিবির সহকারী সাধারণ সম্পাদক মিহির ঘোষ।

এর আগে রায়েরবাজার মাঠে জানাজা শেষে তার মরদেহবাহী গাড়ি পল্টনে পৌঁছালে সিপিবি সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে কেন্দ্রীয় কমিটির নেতারা তাকে গ্রহণ করে গার্ড অব অনার দিয়ে দলের অফিসে নিয়ে যান। মরদেহ লাল পতাকায় আচ্ছাদিত করে তাকে সম্মান জানানো হয়।

কাল ঈশ্বরদীতে দাফন

আগামীকাল শনিবার শামছুজ্জামান সেলিমের মরদেহ নিজ বাড়ি পাবনার ইশ্বরদীতে নিয়ে যাওয়া হবে। সেখানে সর্বস্তুরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদন, গার্ড অব অনার ও জানাজার পর ঈশ্বরদীর মুক্তিযোদ্ধা কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।

রুহিন হোসেন প্রিন্সের নেতৃত্বে একটি কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল ঈশ্বরদীতে তার প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানাবেন।

কাল দেশব্যাপী সিপিবির আহ্বানে শোক দিবস

শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে আগামীকাল সারাদেশে সিপিবি শোক দিবস পালনের ঘোষণা দেয়। শোক দিবসে সারাদেশের সিপিবি অফিসগুলোতে দলীয় পতাকা অর্ধনমিত থাকবে, কালো পতাকা উত্তোলন করা হবে এবং নেতাকর্মীরা কালো ব্যাজ ধারণ করবেন।

Comments