ভিসা নীতির বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে কিছু বলা হয়নি: ভারপ্রাপ্ত পররাষ্ট্র সচিব

ভারপ্রাপ্ত পররাষ্ট্র সচিব বলেন, ‘তারা কনস্যুলার বিষয়ে পারস্পরিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছেন।’
ছবি: ইউএনবি

ভারপ্রাপ্ত পররাষ্ট্র সচিব রিয়ার অ্যাডমিরাল (অব.) মো. খুরশেদ আলম বলেছেন, 'সম্প্রতি ঘোষিত মার্কিন ভিসা নীতির বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে কিছু বলা হয়নি।'

তিনি বলেন, 'আমি পরিষ্কার করে বলতে পারি যে তারা ভিসা নীতি নিয়ে কোনো আলোচনা করেনি।'

আজ রোববার কনস্যুলার অ্যাফেয়ার্স বিষয়ক মার্কিন অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি রেনা বিটারের সঙ্গে তার বৈঠকের পর সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, 'এটি নিয়মিত সফরের অংশ এবং তিনি কোনো নির্দিষ্ট সমস্যা নিয়ে আলোচনা করতে আসেননি।'

ভারপ্রাপ্ত পররাষ্ট্র সচিব বলেন, 'তারা কনস্যুলার বিষয়ে পারস্পরিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছেন।'

ভিসা নীতি কীভাবে প্রয়োগ করা হবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, 'এটা মার্কিন পক্ষের ব্যাপার এবং সরকার তা জানার কোনো উৎসাহ দেখায় না। 'আপনারা (গণমাধ্যম) সেই ব্যাপারে উৎসাহ দেখাতে পারেন।'

ভারপ্রাপ্ত পররাষ্ট্র সচিব জানান, তারা অবশ্য বাংলাদেশি শিক্ষার্থী এবং আন্তর্জাতিক সংস্থায় কর্মরত বাংলাদেশি বংশোদ্ভূতদের ভিসা পেতে বিলম্বের বিষয়টি উত্থাপন করেছে।

তিনি বলেন, মার্কিন পক্ষ থেকে প্রক্রিয়াটি আরও ত্বরান্বিত করার জন্য এটি বিবেচনা করার আশ্বাস দিয়েছে তারা।

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন প্রসঙ্গে খুরশেদ আলম বলেন, রোহিঙ্গাদের মর্যাদাপূর্ণ প্রত্যাবাসন নিয়ে তাদের কোনো দ্বিমত নেই।

তিনি বলেন, তবে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে মাদক পাচার এবং নিরাপত্তাজনিত বিষয়ে উদ্বেগের মতো অন্যান্য সমস্যার দিকে মনোযোগ দিতে হবে।

শনিবার রাতে ঢাকায় আসার আগে এই মার্কিন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ইসলামাবাদ ও করাচি সফর করেন।

মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র বলেছেন, 'তার সফর বিদেশি মার্কিন নাগরিকদের সুরক্ষা এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বৈধ ভ্রমণ ও অভিবাসনের সুবিধার্থে আমাদের গভীর ও টেকসই প্রতিশ্রুতির অংশ।'

সোমবার ভোরে তার ঢাকা ত্যাগের কথা রয়েছে।

ঢাকায় মার্কিন দূতাবাস বলেছে, যুক্তরাষ্ট্রের কনস্যুলার অ্যাফেয়ার্স বিষয়ক অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি রেনা বিটার এবং ভারপ্রাপ্ত পররাষ্ট্র সচিব রিয়ার অ্যাডমিরাল (অব.) মো. খুরশেদ আলমের বৈঠকে স্টুডেন্ট ভিসার প্রতি আগ্রহ বৃদ্ধি, আমেরিকান নাগরিকদের কনস্যুলার সহায়তা এবং ভিসা ইন্টারভিউয়ের অপেক্ষার সময় কমানোর জন্য মার্কিন প্রচেষ্টা প্রভৃতি বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

দূতাবাস আরও জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রে পড়াশোনা ও ভ্রমণ ক্রমশ বাড়ছে।

বৈঠকে বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার হাসও উপস্থিত ছিলেন।

অন্যদিকে ইউএসডিওএস-এর জনসংখ্যা, শরণার্থী ও অভিবাসন ব্যুরোর (পিআরএম) ডিএএস জেনিন ওয়াইন আজ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ভারপ্রাপ্ত পররাষ্ট্র সচিব রিয়ার অ্যাডমিরাল (অব.) মো. খুরশেদ আলমের সঙ্গে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাক্ষাৎ করেন।

দীর্ঘস্থায়ী রোহিঙ্গা সংকট এবং বাংলাদেশের চ্যালেঞ্জ নিয়ে আলোচনা করেন তারা।
 

Comments

The Daily Star  | English
Inflation in Bangladesh

Economy in for a double whammy

With inflation edging towards double digits and quarterly GDP growth nearly halving year on year, pressure on consumers is mounting and experts are pointing at even darker clouds.

8h ago