বাবার জানাজায় ডান্ডাবেড়ি পরা ছাত্রদল নেতা

পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে প্যারোলে মুক্তি পেয়ে পায়ে ডান্ডাবেড়ি পরা অবস্থায় বাবার জানাজায় অংশ নিলেন এক ছাত্রদল নেতা।
পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে ডান্ডাবেড়ি পরা অবস্থায় বাবার জানাজায় অংশ নিয়েছেন ছাত্রদল নেতা মো. নাজমুল মৃধা। ইনসেটে বড় করে দেখানো হয়েছে। ছবি: সংগৃহীত

পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে প্যারোলে মুক্তি পেয়ে পায়ে ডান্ডাবেড়ি পরা অবস্থায় বাবার জানাজায় অংশ নিলেন এক ছাত্রদল নেতা।

ছাত্রদলের এই নেতার নাম মো. নাজমুল মৃধা। তিনি মির্জাগঞ্জ উপজেলা শাখা ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক। আজ শনিবার বেলা ৩টার দিকে মির্জাগঞ্জের পশ্চিম সুবিদখালী গ্রামে তার বাবার জানাজা হয়।

উপজেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক আবুল বাশার মোকলেছুর রহমান বলেন, 'নাজমুল মৃধা মির্জাগঞ্জ উপজেলা ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক পদে আছেন। আজ ডান্ডাবেড়ি অবস্থা তিনি তার বাবার জানাজায় অংশ নেন।'

নাজমুল মৃধার বড় ভাই রাসেল মৃধা বলেন, শুক্রবার রাত ৯টার দিকে তার বাবা দেউলী সুবিদখালী ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সভাপতি ও সাবেক ইউপি সদস্য মো. মোতালেব হোসেন মৃধা (৬০) শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যান।

পুলিশ গত ২০ ডিসেম্বর পশ্চিম সুবিদখালী গ্রামের নিজ বাড়ির সামনে থেকে নাজমুলকে আটক করে বিস্ফোরক মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে জেল হাজতে পাঠায়। আইনজীবীর মাধ্যমে পরিবারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বাবার জানাজায় অংশ নিতে আজ দুপুরে তাকে প্যারোলে মুক্তি দেন আদালত। জানাজার সময় হাতকড়া খুলে দিলেও ডান্ডাবেড়ি খুলে দেয়নি পুলিশ।

নাজমুল মৃধার বড় ভাই রাসেল মৃধা বলেন, আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। পুলিশ ডান্ডাবেড়ি খুলে দিয়ে মানবিকতার পরিচয় দিতে পারত। আমার ভাই কোনো সন্ত্রাসী নয়, রাজনৈতিক মামলার আসামি মাত্র।

মির্জাগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাফিজুর রহমান বলেন, 'পাঁচ ঘণ্টার জন্য শর্ত সাপেক্ষে তাকে জামিন দিয়েছেন আদালত। নিরাপত্তার স্বার্থে তার পায়ের ডান্ডাবেড়ি খুলে দেওয়া হয়নি।'

Comments