বাংলাদেশ

শেষ হলো মানিকগঞ্জের হাজারি গুড়ের মেলা

মানিকগঞ্জ জেলার ব্র্যান্ডিং পণ্য হাজারি গুড়ের হারানো ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে এবং এর সুমিষ্ট স্বাদ-গন্ধ দেশব্যাপী ছড়িয়ে দেওয়ার প্রয়াসে জেলা প্রশাসন এই হাজারি গুড় মেলার আয়োজন করে।
মানিকগঞ্জের হাজারি গুড়ের মেলার সমাপনী অনুষ্ঠানে লাঠিখেলা। ছবি: জাহাঙ্গীর শাহ/স্টার

নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে মানিকগঞ্জে হয়ে গেলো ঐতিহ্যবাহী 'হাজারি গুড় মেলা'। মানিকগঞ্জ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের খেলার মাঠে জেলা প্রশাসন আয়োজিত তিনদিনব্যাপী মেলার সমাপনী দিন ছিল শনিবার।

সমাপনী অনুষ্ঠানের বিশেষ আকর্ষণ ছিল লাঠি খেলা ও লালন সঙ্গীত শিল্পী শফি মণ্ডলের গান।

মেলা মঞ্চে সমাপনী অনুষ্ঠান শুরু হয় বিকেল ৫টায়। অনুষ্ঠানের শুরুতেই নাচ ও গান পরিবেশন করেন শিল্পকলা একাডেমি, শিশু একাডেমি ও সপ্তসুর সঙ্গীত নিকেতনের শিল্পীরা। এরপর মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার জাগীর ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হয় লাঠিখেলা।

বাউল গান এবং শফি মণ্ডলের গান রাত ৯টা পর্যন্ত মাতিয়ে রাখে দর্শকদের।

সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সায়লা ফারজানা। জেলা প্রশাসক রেহেনা আকতারের সভাপতিত্বে সমাপনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ গোলাম আজাদ খান।

মানিকগঞ্জ জেলার ব্র্যান্ডিং পণ্য হাজারি গুড়ের হারানো ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে এবং এর সুমিষ্ট স্বাদ-গন্ধ দেশব্যাপী ছড়িয়ে দেওয়ার প্রয়াসে জেলা প্রশাসন এই হাজারি গুড় মেলার আয়োজন করে।

মেলা প্রাঙ্গণে ৪০টি স্টলে ছিল হাজারি গুড়, খেজুর গাছের রস ও গুড় দিয়ে তৈরি নানাধরনের পিঠা, পায়েস, মুড়ি-মুড়কী। আরও ছিল খেজুর গাছের চারা, বাঁশ-বেত ও মাটির তৈরি জিনিসপত্র, লোকজ সাংস্কৃতিক যন্ত্র-একতারা. দোতরাসহ গ্রামীণ ঐতিহ্যবাহী জিনিসপত্র।

Comments