প্রসূতির মৃত্যুতে হাসপাতাল চত্বরে স্বজনদের বিক্ষোভ

মঙ্গলবার সকালে এই ঘটনা প্রায় দুই ঘণ্টা ধরে হাসপাতাল চত্বরে বিক্ষোভ হয়।
চিকিৎসকের অবহেলায় প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগে হাসপাতালের সামনে বিক্ষোভ করেন গ্রামবাসী ও স্বজনরা। ছবি: সংগৃহীত

দিনাজপুরের পার্বতীপুরে চিকিৎসকের অবহেলায় এক প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগে হাসপাতাল চত্বরে বিক্ষোভ করেছেন রোগীর স্বজন ও গ্রামবাসীরা।

মঙ্গলবার সকালে এই ঘটনা প্রায় দুই ঘণ্টা ধরে হাসপাতাল চত্বরে বিক্ষোভ হয়। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। মারা যাওয়া প্রসূতি মল্লিকা আক্তার মিমের (২১) বাড়ি পার্বতীপুরের মোস্তফাপুর বাজার এলাকায়।

মিমের মা হোসনে আরা বেগম, বাবা মিজানুর রহমান, শ্বশুর আব্দুস সবুরসহ স্বজনদের অভিযোগ সময়মতো চিকিৎসা না পাওয়ায় মিম মারা যায়। তবে নবজাতক সন্তান সুস্থ আছে।

মিমের মা-বাবা বলেন, সোমবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে মিমকে ল্যাম্ব হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আজ ভোর থেকে তার পেটে তীব্র ব্যথা শুরু হয়। কিন্তু মিমকে অপারেশন থিয়েটারে না নিয়ে লেবার রুমে রাখা হয়। সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে মিম তীব্র ব্যথার অজ্ঞান হয়ে যায়। লেবার রুমেই অস্ত্রোপচার করে নবজাতকের জন্ম হয়। তাকে অপারেশন থিয়েটারেও নেওয়া হয়নি। সময়মতো সঠিক ব্যবস্থা নেওয়া হলে মিমের মৃত্যু হতো না বলে দাবি করেন তারা।

ল্যাম্ব হাসপাতালের জনসংযোগ কর্মকর্তা সায়মন জয়ধর চিকিৎসকের অবহেলার অভিযোগ অস্বীকার করে দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, প্রসূতিকে বাঁচানোর যথাসাধ্য চেষ্টা করেছেন চিকিৎসকরা। প্রসূতি হঠাৎ অজ্ঞান হয়ে গেলে সিপিআর করার এক পর্যায়ে সিজার করে নবজাতককে বের করা হয়। এরপরও প্রসূতিকে বাঁচানো যায়নি।

Comments