‘শুনেছি, একটি বিশেষ গোয়েন্দা সংস্থা বিএনপির সমাবেশে অর্থায়ন করেছে’

বিএনপি বিভাগীয় সমাবেশের নামে চাঁদাবাজির একটি বড় প্রকল্প নিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।
তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহ্‌মুদ। ছবি: সংগৃহীত

বিএনপি বিভাগীয় সমাবেশের নামে চাঁদাবাজির একটি বড় প্রকল্প নিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

তিনি আরও বলেন, আমি শুনেছি, বিদেশি একটি বিশেষ গোয়েন্দা সংস্থার পক্ষ থেকেও তাদের অর্থায়ন করা হচ্ছে।

আজ বুধবার দুপুরে ঢাকায় নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আলেক্সান্ডার মান্টিটস্কির সঙ্গে বৈঠক শেষে গণমাধ্যমকর্মীদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

রাশিয়ার রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বৈঠক প্রসঙ্গে তথ্যমন্ত্রী বলেন, আমি বলেছি যুদ্ধ কারো জন্য মঙ্গল বয়ে আনে না। একইসঙ্গে স্যাংশন, কাউন্টার স্যাংশন এগুলো কারো জন্য মঙ্গল বয়ে আনে না। আমি প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য ও সরকারের অবস্থান তাকে জানিয়েছি। তাকে প্রশ্ন করেছি, যুদ্ধ কখন শেষ হতে পারে। তিনি বলেন, সহসা শেষ হবে বলে আশা করছি।

রাশিয়া বাংলাদেশের সমর্থন প্রত্যাশা করেছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, এ বিষয়ে আলোচনা হয়নি। আমি যেটা বলেছি, রাশিয়া আমাদের পরীক্ষিত বন্ধু। মুক্তিযুদ্ধে সময় রাশিয়ার যে ভূমিকা, মুক্তিযুদ্ধের পরেও রাশিয়া আমাদের দেশ গঠনে যে ভূমিকা রেখেছে সেটি আমি স্মরণ করেছি এবং তাকে ধন্যবাদ জানিয়েছি। আমাদের যে অবস্থান যুদ্ধ সম্পর্কে, সেটিও তার সঙ্গে আলোচনা করেছি।

বিএনপি সারা দেশে সমাবেশ করছে, তাদের অর্থের উৎস কী; গণমাধ্যমকর্মীদের এমন প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপি বিভাগীয় সমাবেশের নামে চাঁদাবাজির একটি বড় প্রকল্প নিয়েছে। তারা সমস্ত কালো টাকার মালিকদের কাছ থেকে টাকা সংগ্রহ করছে, ব্যবসায়ীদের বাধ্য করছে চাঁদা দিতে। আমি শুনেছি, বিদেশি একটি বিশেষ গোয়েন্দা সংস্থার পক্ষ থেকেও তাদের অর্থায়ন করা হচ্ছে। যে গোয়েন্দা সংস্থার কাছ থেকে খালেদা জিয়া টাকা নিয়েছিলেন। যেটি সেই গোয়েন্দা সংস্থার প্রধান তাদের দেশের আদালতে সাক্ষ্য দিতে গিয়ে বলেছিলেন।

Comments