রাজনীতি

শেখ হাসিনা মৃত্যুকে ভয় করে না, নিরপেক্ষ নির্বাচনকে ভয় করে: রিজভী

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ‘শেখ হাসিনা বলছেন যে তিনি মৃত্যুকে ভয় করেন না। কিন্তু তিনি সুষ্ঠু নির্বাচনকে ভয় করেন। নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচনকে ভয় করেন। ভয় করেন বলেই সুষ্ঠু নির্বাচন দেন না।’
মঙ্গলবার নারায়ণগঞ্জের খানপুরে মহানগর বিএনপির পদযাত্রা কর্মসূচিতে দলের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী অংশ নেন। ছবি: সংগৃহীত

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, 'শেখ হাসিনা বলছেন যে তিনি মৃত্যুকে ভয় করেন না। কিন্তু তিনি সুষ্ঠু নির্বাচনকে ভয় করেন। নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচনকে ভয় করেন। ভয় করেন বলেই সুষ্ঠু নির্বাচন দেন না।'

দলের নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তারের প্রতিবাদ ও ১০ দফা দাবিতে আজ মঙ্গলবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ শহরের খানপুরে মহানগর বিএনপির পদযাত্রা কর্মসূচিতে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, 'দেশে সুষ্ঠু নির্বাচন নাই, মিছিল করার অধিকার নাই। পুলিশের গুলিতে মানুষ মারা যাচ্ছে। এই নারায়ণগঞ্জে বিএনপি কর্মী শাওন মারা গেছে। সে অন্যায়, ছিনতাই, ডাকাতি কিছুই করেনি। কিন্তু তাকে গুলি করে মারা হয়েছে শুধু বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর মিছিলে থাকার কারণে। পুলিশ ঠাণ্ডা মাথায় একজন মোটরশ্রমিক, বিএনপি কর্মীকে হত্যা করেছে।'

তিনি বলেন, 'আমরা কাউকে আঘাত করতে চাই না। আমরা চাই শেখ হাসিনার শাসনব্যবস্থার অবসান হোক। একটা নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে ভোট চাই। সেখানে জনগণ যাদের ভোট দেবে তারা সরকার গঠন করবে।'

এই বিএনপি নেতা আরও বলেন, 'আজ নাইকো মামলার বিচার শুরু করেছে। এই নাইকো মামলার আসামি ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজে। তিনি রাষ্ট্রক্ষমতার জোরে নিজের নাম বাদ দিয়ে খালেদা জিয়াসহ কয়েকজনের নাম সেখানে দিয়ে বিচার করছেন। এটা প্রহসনের বিচার, শেখ হাসিনার ইচ্ছা পূরণের বিচার। উনি আদালত, পুলিশ, র‍্যাব নিয়ন্ত্রণ করেন। উনাকে সবাই ভয় পায়।'

দলীয় নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানিয়ে রিজভী বলেন, 'পুলিশের বেষ্টনীতে থেকে যুবলীগ, ছাত্রলীগ হামলা করে। এর মধ্যেও আমরা কর্মসূচি পালন করি। আন্দোলন সংগ্রামের নগরী নারায়ণগঞ্জ। এখানে অনেক অন্যায়, অবিচার হয়েছে। আজকে নিষ্পাপ কিশোর ত্বকী নেই কেন, শীতলক্ষ্যায় ৭টা লাশ কেন, এগুলা আমরা জানি। তাই সত্যের পক্ষে, অন্যায়ের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হয়ে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে।'

পদযাত্রায় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির ঢাকা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ, সহআন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদ, মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক সাখাওয়াত হোসেন খান, সদস্যসচিব আবু আল ইউসুফ খান, জেলা বিএনপির যুগ্ম-আহ্বায়ক মনিরুল ইসলাম রবি প্রমুখ।

বিকেল ৩টায় খানপুর হাসপাতাল রোডে এলাকায় জড়ো হন বিএনপি নেতারা। সেখান থেকে পদযাত্রাটি বিকেল ৫টায় শহরের চাষাঢ়ায় নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে গিয়ে শেষ হয়।

পদযাত্রায় বিএনপি কর্মীদের মধ্যে বিশৃঙ্খলা দেখা যায়। শহরের মিশনপাড়া এলাকায় দুটি পক্ষ হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ে।

Comments