বাংলাদেশ কারো কাছে হাত পাতে না, অন্য দেশকে ঋণ দেয়: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন মধ্যম আয়ের দেশ, বাংলাদেশ কারো কাছে হাত পাতে না।
গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। ছবি: স্টার

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন মধ্যম আয়ের দেশ, বাংলাদেশ কারো কাছে হাত পাতে না।

করোনা নিয়ন্ত্রণে বাংলাদেশ বিশ্বের মধ্যে পঞ্চম ও এশিয়ার মধ্যে প্রথম হওয়ার কারণে রোববার সন্ধ্যায় স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে গণসংবর্ধনা দেওয়া হয়।

মানিকগঞ্জ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের খেলার মাঠে অনুষ্ঠিত এই সংবর্ধনায় বিএনপির উদ্দেশে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, 'করোনার সময় আপনারা কোথায় ছিলেন? মানুষের কষ্টের সময়তো আপনাদের দেখা যায়নি। আপনারা সংবিধান মানেন না। অসাংবিধানিকভাবে দখল করতে চান। কিন্তু আওয়ামী লীগ ছোট সংগঠন নয়, ছোট দল নয়, আওয়ামী লীগ একটি বড় দল। শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর কন্যা। হিমালয় পর্বতের মতো দাঁড়িয়ে আছেন। হিমালয়ের পর্বতকে কেউ ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিতে পারে না।'

'নির্বাচনে আসুন। মানুষের কাছে আপনাদের গ্রহণযোগ্যতা প্রমাণ করুন। নিজেদের শক্তি প্রমাণ করুন,' বলেন তিনি।

মন্ত্রী আরও বলেন, 'আমেরিকা বাংলাদেশকে বটমলেস বাস্কেট (তলাবিহীন ঝুড়ি) বলেছিল। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন মধ্যম আয়ের দেশ। বাংলাদেশ এখন কারও কাছে হাত পাতে না। এখন অন্য দেশকে ঋণ দিয়ে সাহায্য করে। বাংলাদেশ অন্য দেশকে খাবার দিয়ে থাকে। অন্যের কাছে খাবারের জন্য হাত পাতে না।'

জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট গোলাম মহীউদ্দীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই সম্বর্ধনা অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন মানিকগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য এ এম নাঈমুর রহমান দূর্জয়, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সালামসহ জেলা, উপজেলা ও পৌর আওয়ামী লীগ ও সকল সহযোগী সংগঠনের জেলা কমিটির সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক।

Comments

The Daily Star  | English

Iran launches drone, missile strikes on Israel, opening wider conflict

Iran had repeatedly threatened to strike Israel in retaliation for a deadly April 1 air strike on its Damascus consular building and Washington had warned repeatedly in recent days that the reprisals were imminent

2h ago