রাজনীতি

আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভা চলছে

রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে বৈঠক শুরু হয়।
আওয়ামী লীগ
আওয়ামী লীগের লোগো | সংগৃহীত

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারি বাসভবন গণভবনে আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভা শুরু হয়েছে।

আজ রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে বৈঠক শুরু হয়।

এদিকে সকাল ৮টা থেকে সারাদেশের নেতাকর্মীরা গণভবনের সামনে জড়ো হতে থাকেন। সকাল সাড়ে ৮টা থেকে নেতারা একে একে গণভবনে প্রবেশ করেন।

গণভবনে আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভায় যোগ দিতে সকাল থেকে নেতারা আসতে থাকেন। ছবি: স্টার

বৈঠক প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের গতকাল বলেছেন, 'নির্বাচনী ইশতেহার বাস্তবায়নে দলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হয়েছে। কৌশলগত কারণে স্বতন্ত্র প্রার্থীদের প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল। ৬২ জন নির্বাচিত হয়েছেন। তারাও আওয়ামী লীগের।'

'নির্বাচনে নিজেদের মধ্যে কিছু ভুল বোঝাবুঝি, মতবিরোধ, দ্বন্দ্বও হয়েছে। এসব বিষয়ের অবসান ঘটিয়ে নির্বাচনী ইশতেহার বাস্তবায়নে প্রয়োজন দলের মধ্যে সুদৃঢ় ঐক্য। সবার মধ্যে ঐক্যবদ্ধ পরিবেশ সৃষ্টির লক্ষ্যে এই বিশেষ বর্ধিত সভার আয়োজন করা হয়েছে,' বলেন তিনি।

আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে দলের জাতীয় কমিটি, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ, উপদেষ্টা পরিষদ, জেলা, মহানগর, উপজেলা, থানা, পৌরসভার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক, আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী, স্বতন্ত্র, জেলা ও উপজেলা পরিষদের মেয়র এবং আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকরা যোগ দিয়েছেন।

গত ২২ জানুয়ারি আওয়ামী লীগের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সঙ্গে আলোচনা শেষে বিশেষ সভা ডাকার সিদ্ধান্ত হয়।

দলীয় সূত্র জানায়, ৫৮টি নির্বাচনী এলাকা থেকে অভ্যন্তরীণ বিরোধের খবর আসছে, যেখানে ৭ জানুয়ারির জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগের স্বতন্ত্র প্রার্থীরা দলের নির্বাচিত প্রার্থীদের বিরুদ্ধে বিজয়ী হয়েছেন। মোট ২৯৯টি আসনে তৃণমূল নেতারা ১৮১টি আসনে দলীয় মনোনীত প্রার্থীর বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন।

আগামী মার্চ থেকে পাঁচ ধাপে অনুষ্ঠেয় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের আগে এখন দলের মধ্যে শৃঙ্খলা আনতে চায় ক্ষমতাসীন দল।

Comments