রাজনীতি

কারাগারে মারা যাওয়া ১৩ বিএনপি নেতার ময়নাতদন্ত হয়েছে কি না, প্রশ্ন হাইকোর্টের

এসব ক্ষেত্রে অপমৃত্যুর কোনো মামলা হয়েছে কি না, তাও জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট।
২১ আগস্ট, গ্রেনেড হামলা
ফাইল ছবি

গত কয়েক মাসে কারাগারে মারা যাওয়া ১৩ বিএনপি নেতার ময়নাতদন্ত করা হয়েছে কি না, এবং এসব ক্ষেত্রে কোনো অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে কি না, তা জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট।

আজ সোমবার বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম ও বিচারপতি মো. আতাবুল্লাহর হাইকোর্ট বেঞ্চ আইনজীবীদের বলেন, 'এসব বিষয়ে তথ্য দিন এবং সম্পূরক পিটিশন দাখিলের মাধ্যমে বিস্তারিত জানাতে পারেন।'

গত ছয় মাসে কারাগারে আটক ১৩ বিএনপি নেতাকর্মীর মৃত্যুর ঘটনায় গত ১১ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন বিএনপির আইন বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার কায়সার কামাল।

আবেদনে নেতাকর্মীদের মৃত্যুর ঘটনায় দেশীয় ও আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থার সমন্বয়ে একটি তদন্ত কমিটি গঠনের নির্দেশ চেয়েছেন তিনি। 

আজ আদালত অবশ্য এ আবেদনের শুনানি এক সপ্তাহের জন্য মুলতবি করেন।

শুনানির সময় উপস্থিত ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী, কায়সার কামাল ও মো. মাকসুদ উল্লাহ। 

আবেদনের বিরোধিতা করেন অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন ও ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তুষার কান্তি রায়।

শুনানির সময় আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলীর কাছে আদালত জানতে চান, এই রিট আবেদন গ্রহণযোগ্য কি না।

জবাবে আইনজীবী বলেন, 'রিট আবেদন গ্রহণযোগ্য এবং কারাগারে এ ধরনের মৃত্যুর ঘটনা বন্ধ করতে হবে।'

অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন আদালতকে বলেন, 'রিট আবেদনকারীর কোনো অভিযোগ থাকলে নির্যাতন ও হেফাজতে মৃত্যু (প্রতিরোধ) আইন, ২০১৩-এর অধীনে মামলা করতে পারতেন।'

 

Comments