আজ পপকর্ন খাওয়ার দিন

পপকর্ন! ছোট থেকে বড়, সবার পছন্দের খাবার। স্কুলের বাইরে, রাস্তার মোড়ে, বাসে বা ট্রেনে সবখানেই দেখা মেলে এটির। এমনকি সিনেমা হলেও আমাদের সঙ্গী পপকর্ন। এই খাবারটি ছাড়া দীর্ঘ ভ্রমণ, বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা কিংবা সিনেমা দেখা- কোনোটাই জমে ওঠে না। সুতরাং সেই স্কুলজীবন থেকে শুরু নানাভাবে আমাদের জীবেনর সঙ্গে জড়িয়ে আছে পপকর্ন।
আজ পপকর্ন দিবস
ছবি: সংগৃহীত

পপকর্ন! ছোট থেকে বড়, সবার পছন্দের খাবার। স্কুলের বাইরে, রাস্তার মোড়ে, বাসে বা ট্রেনে সবখানেই দেখা মেলে এটির। এমনকি সিনেমা হলেও আমাদের সঙ্গী পপকর্ন। এই খাবারটি ছাড়া দীর্ঘ ভ্রমণ, বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা কিংবা সিনেমা দেখা- কোনোটাই জমে ওঠে না। সুতরাং সেই স্কুলজীবন থেকে শুরু নানাভাবে আমাদের জীবেনর সঙ্গে জড়িয়ে আছে পপকর্ন।

পপকর্ন যে অনেকের প্রিয় খাবার সে বিষয়ে কোনো প্রশ্ন নেই। আবার এটাও জানি যে, মজাদার এই খাবারটি তৈরি হয় ভুট্টা থেকে। কিন্তু যে কথাটি অনেকেই জানি না তা হলো, পপকর্ন নিয়ে একটি দিবস আছে। আর আজ সেই দিন। প্রতি বছরের ১৯ জানুয়ারি পপকর্ন দিবস উদযাপন করা হয়। সুতরাং আজকের দিনটি পপকর্ন ভক্তদের জন্য।

আসলে দুই ধরনের পপকর্ন আছে। এর মধ্যে মুভি থিয়েটারে আমরা সবাই পরিচিত যে হলুদ পপকর্ন দেখি তা এখন পর্যন্ত সবচেয়ে জনপ্রিয়। মোটামুটি গ্রাম থেকে শুরু করে শহরে- যেকোনো জায়গায় পপকর্ন পাওয়া যায়।

যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে জনপ্রিয় স্ন্যাকসগুলোর একটি এই পপকর্ন। মার্কিনিরা সাধারণত বছরে প্রায় ১৩ বিলিয়ন কোয়ার্ট পপকর্ন খেয়ে থাকে। যা বিশ্বের অন্য যেকোনো দেশের চেয়ে বেশি। অতএব, জনপ্রিয় এই স্ন্যাকটির জন্য একটি দিবস থাকা দোষের কিছু নয়। আর যুক্তরাষ্ট্রে ২০১৪ সালে পপকর্ন দিবস জাতীয় ছুটিতে পরিণত হয়।

তবে, পপকর্ন দিবস কীভাবে এলো এবং ঠিক কখন থেকে শুরু হলো তার সঠিক তথ্য অজানা। কিন্তু, অনেকে মনে করেন, সুপার বোলের কারণে পপকর্ন দিবসের সূচনা হয়েছিল। কারণ, সুপার বোলের দর্শক ও অনুরাগীদের কাছে পপকর্ন একটি প্রিয় খাবার। যদিও পপকর্ন দিবসের ইতিহাস বিভিন্ন দিনে দেখানো হয়েছে। ১৯৭০ সালে হাই পয়েন্ট এন্টারপ্রাইজের একটি বিজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, ২৪ অক্টোবর ছিল জাতীয় পপকর্ন দিবস।

 কিন্তু, ১৯৮০-এর দশকের ম্যাগাজিনগুলো বলছে, পপকর্ন দিবস ৩১ জানুয়ারি এবং ১৯৮০ সাল থেকে পপকর্ন দিবস সুপার বোলের মতো একই দিনে উদযাপন করা হতো। কিন্তু অবশেষে, ২০০৩ সালে একটি সংবাদপত্রের প্রতিবেদনে বলা হয়, ১৯ জানুয়ারি পপকর্ন দিবস এবং সেই থেকেই ১৯ জানুয়ারি পপকর্ন দিবস উদযাপিত হয়ে আসছে।

যেহেতু আজ পপকর্ন দিবস তাই আপনিও চাইলে দিবসটি উদযাপন করতে পারেন। নিজের উদযাপনকে পপ করে তুলতে পারেন। আর এজন্য আছে অনেক মজার উপায়। সবচেয়ে দারুণ উপায় হলো পপকর্নের স্বাদ গ্রহণ করা এবং বন্ধু ও পরিবারের সঙ্গে উপভোগ করা। বন্ধুকে বাসায় দাওয়াত দিতে পারেন এবং তাকে পপকর্ন খেতে দিতে পারেন। যেহেতু ভুট্টা থেকে পপকর্ন বানানো হয়, তাই চাইলে ভুট্টা দানার মালা বানিয়ে তাকে বরণ করতে পারেন। এছাড়া, পপকর্নের অনেক মজাদার মুখরোচক রেসিপি আছে। যেগুলো আপনার পপকর্ন দিবসকে আরও বিশেষ করে তুলতে পারে।

Comments

The Daily Star  | English
Dhaka Airport Third Terminal: 3rd terminal to open partially in October

HSIA’s terminal-3 to open in Oct

The much anticipated third terminal of the Dhaka airport is likely to be fully ready for use in October, enhancing the passenger and cargo handling capacity.

7h ago