শোয়েব মালিকের ইঙ্গিত পূর্ণ টুইট নিয়ে যেমন ভাবছেন আফ্রিদি

শহিদ আফ্রিদির এই পোস্ট পছন্দ না হলেও মালিক যে এই বয়েসেও পাকিস্তান দলে থাকার যোগ্য তা জোর দিয়ে বলেছেন।
Shahid Afridi and Shoaib Malik
শহিদ আফ্রিদি ও শোয়েব মালিক। ফাইল ছবি

এশিয়া কাপের ফাইনালে শ্রীলঙ্কার কাছে হারার পরই টুইটারে ইঙ্গিত পূর্ণ এক টুইট করেন শোয়েব মালিক। অভিজ্ঞ এই ক্রিকেটার তার দলে না থাকায় স্বজনপ্রীতির আভাস দেন। শহিদ আফ্রিদির এই পোস্ট পছন্দ না হলেও মালিক যে এই বয়েসেও পাকিস্তান দলে থাকার যোগ্য তা জোর দিয়ে বলেছেন।

গত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজের দলে ছিলেন মালিক। ওই সিরিজের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি খেলে স্ত্রীর অসুস্থতায় ফিরে যান তিনি। এরপর আর পাকিস্তান দলে ডাক পড়েনি ৪১ বছর বয়েসী ক্রিকেটারের।

বয়স ৪১ পেরিয়ে গেলেও বিভিন্ন ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগে এখনো পারফর্ম করছেন, একই সঙ্গে পাকিস্তানের মিডল অর্ডারে আছে সংকট। সামা টিভির আলোচনায় সব মিলিয়ে মালিকের দলে থাকা উচিত ছিল বলে মনে করেন আফ্রিদি, 'সে (শোয়েব মালিক) দুনিয়া ঘুরে ক্রিকেট খেলছে। সে এখনো ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর চাহিদার শীর্ষে। সে একইসঙ্গে দারুণ ফিট। মালিক দলে থাকলে বাবর আজম সহায়তা পেত, এমনকি সে বেঞ্চে থাকলেও।'

'সে যে আর পরিকল্পনার অংশ নয় নির্বাচকরা তার সঙ্গে যোগাযোগ করে তা জানানো উচিত ছিল।'

এশিয়া কাপের ফাইনালের পর পরই মালিক টুইটারে ইঙ্গিত দিয়ে লেখেন,  'বন্ধুত্ব, পছন্দ, অপছন্দ যখন সংস্কৃতি হয়ে যায়… আল্লাহ সব সময় সৎ মানুষদের সাহায্য করেন।'

আফ্রিদির মতে বিশ্বকাপ দল ঘোষণার আগে এরকম পোস্ট করা উচিত হয়নি তার, 'আমার মনে হয় মালিকের এই ধরনের পোস্ট দেওয়া উচিত হয়নি। দল ঘোষণার আগ পর্যন্ত তার অপেক্ষা করা উচিত ছিল। আমার মনে হয় দলে থাকার সে যোগ্য ছিল।'

পাকিস্তানের জাতীয় টি-টোয়েন্টি কাপেও ছন্দে আছেন মালিক। শুক্রবার সেন্ট্রাল পাঞ্জাবের হয়ে নর্থানের বিপক্ষে খেলেছেন ৩৯ বলে ৬২ রানের ইনিংস। আফ্রিদির মতে পাকিস্তানের গত ইংল্যান্ড সফরের অংশ থাকতে পারতেন মালিক, তাকে কিছু ম্যাচে সুযোগ দিয়ে দেখা যেত পারছেন কিনা, 'পাকিস্তান ইংল্যান্ড সিরিজেই মালিককে দলে নিতে পারত। ওই ট্যুরে ওকে তিন-চারটা ম্যাচ খেলিয়ে পারফরম্যান্স দেখতে পারত। আমাদের মিডল অর্ডার ব্যাটার দরকার। এই ভূমিকায় খেলার জন্য মালিকের অভিজ্ঞতা অনেক।'

মিডল অর্ডারে পাকিস্তান খেলাচ্ছে ইফতেখার আহমেদকে। ৩২ পেরুনো এই ডানহাতি ব্যাটারের পারফরম্যান্স নিয়ে আছে সমালোচনা। এশিয়া কাপে দলের গুরুত্বপূর্ণ ফেইজে পরিস্থিতি অনুযায়ী ব্যাট করতে পারেননি তিনি। তবে বিশ্বকাপে ঠিকই তার জায়গা হয়েছে।

Comments

The Daily Star  | English

Eid rush: People suffer as highways clog up

Thousands of Eid holidaymakers left Dhaka yesterday, with many suffering on roads due traffic congestions on three major highways and at an exit point of the capital in the morning.

1h ago