সরকারি চাকরি

৬ দফা দাবিতে পিএসসির সামনে চাকরিপ্রার্থীরা

৬ দফা দাবি না মানায় বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসি) সামনে লাগাতার অবস্থান কর্মসূচি করছেন ৪০তম বিসিএস উত্তীর্ণ নন-ক্যাডার সুপারিশপ্রত্যাশী ও চাকরিপ্রার্থীরা।
অবস্থান কর্মসূচীতে অংশ নেওয়া চাকরিপ্রার্থীদের একাংশ। ছবি: স্টার

৬ দফা দাবি না মানায় বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসি) সামনে লাগাতার অবস্থান কর্মসূচি করছেন ৪০তম বিসিএস উত্তীর্ণ নন-ক্যাডার সুপারিশপ্রত্যাশী ও চাকরিপ্রার্থীরা।

আজ রোববার সকাল ১০টা থেকে তাদের এই কর্মসূচী শুরু হয়।

চাকরিপ্রার্থী রাকিবুল হাসান দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, 'আমাদের কর্মসূচী দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত চলবে। যৌক্তিক দাবিতেই আমরা এখানে অবস্থান নিয়েছি। এর আগেও দাবি আদায়ের জন্য কয়েকটি শান্তিপূর্ণ কর্মসূচী পালন করেছি।'

গত ১৬ অক্টোবর ৪০তম বিসিএস উত্তীর্ণ নন-ক্যাডার সুপারিশপ্রত্যাশী ও চাকরিপ্রার্থী বেকার ছাত্রসমাজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যে পিএসসির কাছে ৬ দফা দাবি উত্থাপন করে।

কিন্তু পিএসসি এই ৬ দফা দাবি না মানায়, চাকরিপ্রার্থীরা পিএসসির সামনে লাগাতার এই অবস্থান কর্মসূচি শুরু করেছেন৷

পিএসসি বিসিএস নন-ক্যাডার পদের তারিখ অনুযায়ী বিভাজনের যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তার বিপক্ষে গত ৬ অক্টোবর ৪০তম বিসিএস নন-ক্যাডার এবং ৪১-৪৪ বিসিএস চাকরিপ্রার্থী ছাত্রসমাজ পিএসসির সামনে একটি মানববন্ধন করে। এরই ধারাবাহিকতায় গত ১৬ অক্টোবর রাজু ভাস্কর্যের সামনে প্রতিবাদ সমাবেশ ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়।

এই সমাবেশে বাংলার চাকরিপ্রার্থী ছাত্রসমাজ তাদের ৬ দফা দাবি উপস্থাপন করে এবং দাবি মেনে নেওয়ার জন্য পিএসসিকে ৫ কর্মদিবসের আল্টিমেটাম দেয়।

অবস্থান কর্মসূচীতে অংশ নেওয়া চাকরিপ্রার্থীদের একাংশ। ছবি: স্টার

এই দাবির সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করে দেশের ৮ বিভাগের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজের চাকরিপ্রার্থী ছাত্রসমাজ ২০ অক্টোবর একযোগে প্রতিবাদ সমাবেশ ও মানববন্ধন করে।

পরবর্তীতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিক সমিতিতে গত ২৪ অক্টোবর সংবাদ সম্মেলন করে আল্টিমেটাম আরও ৬ দিন (২৯ অক্টোবর ২০২২ পর্যন্ত) বর্ধিত করা হয়।

পিএসসির পক্ষ থেকে ৬ দফা দাবির বিষয়ে কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

Comments