ডিজিটাল বাংলাদেশ থেকে স্মার্ট বাংলাদেশের দিকে এগিয়ে যাচ্ছি: শিক্ষামন্ত্রী

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ থেকে আমরা স্মার্ট বাংলাদেশের দিকে এগিয়ে যাচ্ছি। সেই স্মার্ট বাংলাদেশের নাগরিক হবে স্মার্ট নাগরিক। সরকার হবে স্মার্ট সরকার, থাকবে স্মার্ট অর্থনীতি, স্মার্ট সমাজ। সব স্মার্ট গড়ার জন্য যেটি দরকার সেটি হচ্ছে স্মার্ট শিক্ষা। নতুন শিক্ষাক্রম তৈরির মাধ্যমে সেদিকেই আমরা এগিয়ে চলেছি।’
শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। ছবি: সংগৃহীত

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, 'ডিজিটাল বাংলাদেশ থেকে আমরা স্মার্ট বাংলাদেশের দিকে এগিয়ে যাচ্ছি। সেই স্মার্ট বাংলাদেশের নাগরিক হবে স্মার্ট নাগরিক। সরকার হবে স্মার্ট সরকার, থাকবে স্মার্ট অর্থনীতি, স্মার্ট সমাজ। সব স্মার্ট গড়ার জন্য যেটি দরকার সেটি হচ্ছে স্মার্ট শিক্ষা। নতুন শিক্ষাক্রম তৈরির মাধ্যমে সেদিকেই আমরা এগিয়ে চলেছি।'

আজ রোববার দুপুরে গাজীপুরের কাপাসিয়া সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে পাঠ্যপুস্তক উৎসব অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। 

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, 'সারাদেশে আজকে বই উৎসব হচ্ছে। বাংলাদেশ একটি অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে, যেখানে বছরের প্রথম দিন বই উৎসব হয় এবং কোটি কোটি শিক্ষার্থী এই উৎসবে অংশগ্রহণ করে।'

শিক্ষামন্ত্রী বলেন,  'গত ২০১০ সাল থেকে ২০২৩ সাল পর্যন্ত বিনামূল্য যে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ করেছি তার সংখ্যা ৪৩৪ কোটি ৪৫ লাখ ৮০ হাজার ২১১। এটি বিশ্বের যে কোনো জায়গার জন্য অচিন্তনীয় ব্যাপার। এর মধ্য দিয়ে আমাদের শিক্ষার্থীদের ঝড়ে পড়ার হার রোধ করতে পেরেছি। কারণ, বাবা-মার ওপর বই কেনার ভারটি থাকছে না।'

গাজীপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) আনিসুর রহমান জানান, জেলায় এ বছর প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত ৬ লাখ ১২ হাজার ৩৫১ জন শিক্ষার্থীর হাতে ২৫ লাখ ৪০ হাজার ২৩৪টি এবং ষষ্ঠ শ্রেণি থেকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত ৬ লাখ ৯২ হাজার ৭৩০ জন শিক্ষার্থীর হাতে মোট ৮৭ লাখ ৭৬ হাজার ৬৮৯টি পাঠ্যপুস্তক বিতরণ করা হবে। শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় পাঠ্যপুস্তক উৎসবের আয়োজন করে। এরমধ্যে বই উৎসবের প্রথম দিনে কাপাসিয়া উপজেলার ৩১টি স্কুল এবং ৬টি মাদ্রাসার ৬ হাজার শিক্ষার্থীর হাতে নতুন বই তুলে দেওয়া হয়।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব আবু বকর ছিদ্দীকের সভাপতিত্বে পাঠ্যপুস্তক উৎসব অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, আওয়ামী লীগের স্থায়ী কমিটির সদস্য সিমিন হোসেন রিমি, কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব কামাল হোসেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব ইব্রাহিম ভূঁইয়া স্বপন, গাজীপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোতাহার হোসেন মোল্লা, গাজীপুরের জেলা প্রশাসক আনিছুর রহমান, কাপাসিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আমানত হোসেন খান।

Comments