সংগঠন সংবাদ

আগামীকাল দিল্লিতে শুরু হচ্ছে ভারত-বাংলাদেশ কৌশলগত সংলাপ

সমসাময়িক বিভিন্ন দ্বিপাক্ষিক বিষয় নিয়ে আগামীকাল দিল্লিতে ‍২ দিনব্যাপী ভারত-বাংলাদেশ কৌশলগত সংলাপ শুরু হচ্ছে।
ভারত-বাংলাদেশ কৌশলগত সংলাপ, ভারত, বাংলাদেশ, সিপিডি, অনন্ত অ্যাস্পেন সেন্টার,
ছবি: সংগৃহীত

সমসাময়িক বিভিন্ন দ্বিপাক্ষিক বিষয় নিয়ে আগামীকাল দিল্লিতে ‍২ দিনব্যাপী ভারত-বাংলাদেশ কৌশলগত সংলাপ শুরু হচ্ছে।

বাংলাদেশের সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি) ও ভারতের অনন্ত অ্যাস্পেন সেন্টার যৌথভাবে এই আলোচনার আয়োজন করছে।

আজ বুধবার সিপিডির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ওই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, আলোচনায় উভয় দেশের উচ্চপর্যায়ের নীতি নির্ধারক, বিশেষজ্ঞ ও অংশীদাররা অংশ নিবেন। তারা পানি বণ্টন, সড়ক, রেল, উপকূলীয় বন্দর ব্যবস্থা, জ্বালানি ও ডিজিটাল কানেকটিভিটিসহ মাল্টিমোডাল কানেকটিভিটি নিয়ে আলোচনা করবেন। এছাড়া, আর্থিক খাতে সহযোগিতা ও প্রযুক্তি হস্তান্তরের মতো বিষয়ে মতবিনিময় হবে। বিকাশমান ভূ-রাজনৈতিক পরিস্থিতির প্রেক্ষাপটে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের বিবর্তনও মূল্যায়ন করা হবে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, ২ দেশ যখন জাতীয় নির্বাচনের দিকে এগোচ্ছে, তখন ভারত-বাংলাদেশ দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক কীভাবে পুনর্গঠন ও পুনঃকল্পনা করা যায় তা নিয়ে আলোচনার সুযোগ হবে এই সংলাপ।

বাংলাদেশের পক্ষ থেকে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে আছেন- সিপিডির নির্বাহী পরিচালক ফাহমিদা খাতুন, সিপিডির ডিসটিনগুইশড ফেলো দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য ও অধ্যাপক মোস্তাফিজুর রহমান, সাবেক নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) এম সাখাওয়াত হোসেন, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাবেক সিনিয়র সচিব শহীদুল হক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক আমেনা মহসিন, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) অধ্যাপক ড. ম তামিম, বাংলাদেশ-থাই চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি শামস মাহমুদ।

এটি একটি বেসরকারি উদ্যোগ। সিপিডি-অনন্ত অ্যাস্পেন সহযোগিতায় এটি হবে দ্বিতীয় সংলাপ। প্রথম সংলাপটি হয়েছিল গত বছরের ১৮ মে (ভার্চুয়ালি)।

সিপিডি ও ভারতে তার অংশীদাররা গত কয়েক বছরে ১৬টি সংলাপের আয়োজন করেছে।

Comments