উত্তরে শীতের আমেজ, ঢাকায় আজ তাপমাত্রা সামান্য বাড়তে পারে

সুস্পষ্ট লঘুচাপটি ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নেওয়ার সম্ভবনা নেই বললেই চলে।
উত্তরে শীতের আমেজ, ঢাকায় আজ তাপমাত্রা সামান্য বাড়তে পারে
লালমনিরহাট সদর উপজেলার মোগলহাট ইউনিয়নের ভাটিবাড়ি গ্রামে খেজুর গাছ থেকে রস সংগ্রহের প্রস্তুতি নিচ্ছেন একজন গাছি | ছবি: এস দিলীপ রায়/স্টার

ডিসেম্বর থেকে ফেব্রুয়ারি; আবহাওয়া অধিদপ্তরের হিসাবে এই তিন মাস শীত মৌসুম। তবে মধ্য নভেম্বরে দেশের উত্তরাঞ্চলে শীতের আগমনী বার্তা পাওয়া যাচ্ছে।

রাত নামার সঙ্গে সঙ্গে নামছে পারদ। ভোরে কুয়াশা ঘিরে রাখছে চারপাশ। ইতোমধ্যে খেজুরের রস সংগ্রহের প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছেন গাছিরা। আজ বুধবার সকাল ৬টায় তেঁতুলিয়ায় দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৪ দশমিক নয় ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

গতকাল সকালে তেঁতুলিয়ায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৪ দশমিক আট ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছিল। সে সময় রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের প্রতিটি জেলার তাপমাত্রা ছিল ২০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে।

দ্য ডেইলি স্টারের লালমনিরহাট প্রতিনিধি দিলীপ রায়ের সঙ্গে কথা হয় সদর উপজেলার তিস্তাপাড় রাজপুর গ্রামের কৃষক মনি চন্দ্র বর্মণের।

ষাটোর্ধ্ব এই ব্যক্তি বলেন, এখন রাতে ঠান্ডা অনুভূত হয়, শীতের কাপড় পড়তে হয়। তবে দিনে গরম লাগে।

মনি চন্দ্রের মতে, গত বছরের তুলনায় এবার শীত কম।

'হামার এত্যি এবার জার অ্যাকনা কম মনে হবার নাইকছে। জার আস্তে আস্তে বাইরবার নাইকছে,' বলেন তিনি।

একই মত দেন লালমনিরহাট সদর উপজেলার ধরলারপাড় বুমকা গ্রামের দিনমজুর মকবুল হোসেন।

পঞ্চাশোর্ধ্ব এই ব্যক্তি ডেইলি স্টারের এই প্রতিবেদককে বলেন, 'কাইল সকালোত হামার এত্যি অ্যাকনা জার পড়ছিল। অ্যালাং আগুন তাপা শুরু হয় নাই।

'মনে হবার নাইকছে সাত-আট দিন পর জার শুরু হইবে। জারের কাপড় কেনা শুরু হয়নি,' বলেন তিনি।

প্রাচীন ভারতের জ্যোতির্বিদ খনা বলেছেন, 'ঊন বর্ষায় দুনো শীত', অর্থাৎ যে বছর বৃষ্টি কম হয়, সে বছর শীত বেশি পড়ে। এবার হয়েছে তার উল্টো। অক্টোবরে সারা দেশে স্বাভাবিকের চেয়ে ৩৫ দশমিক এক শতাংশ বেশি বৃষ্টি হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, ১৩ থেকে ১৫ অক্টোবরের মধ্যে রাজশাহী, রংপুর, ঢাকা, ময়মনসিংহ, খুলনা, বরিশাল, সিলেট বিভাগ এবং ১৬ অক্টোবর সারা দেশ থেকে বিদায় নিয়েছে দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু।

গত কয়েক দিন ধরে ঢাকায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩১ থেকে ৩২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে থাকছে। রেকর্ড অনুসারে মঙ্গলবার বিকেলে রাজধানীর সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩২ দশমিক ছয় ডিগ্রি সেলসিয়াস।

সে সময় দেশের সর্বোচ্চ ফেনীতে ৩৪ দশমিক সাত ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়।

আজ বুধবার সকালে ঢাকার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২১ দশমিক দুই ডিগ্রি সেলসিয়াস।

লঘুচাপের প্রভাবে তাপমাত্রা কিছুটা বেশি জানিয়ে আবহাওয়াবিদ ড. আবুল কালাম মল্লিক ডেইলি স্টারকে বলেন, 'যখন সাগরে কোনো সার্কুলারেশন থাকে, তখন তাপমাত্রা কিছুটা বেড়ে যায়।'

তিনি আরও বলেন, 'আজও ঢাকার আবহাওয়া তুলনামূলক সামান্য বাড়ার সম্ভাবনা আছে।'

দক্ষিণপূর্ব বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত লঘুচাপটি ঘণীভূত হয়ে সুস্পষ্ট লঘুচাপে পরিণত হয়েছে। আজই নিম্নচাপে রূপ নিতে পারে বলে মনে করছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। আবহাওয়াবিদ ওমর ফারুক বলেন, 'এটি আরও ঘনীভূত হয়ে গভীর নিম্নচাপে রূপ নেওয়ার সম্ভাবনা আছে।'

তিনি আরও বলেন, 'এর প্রভাবে দেশের দক্ষিণাঞ্চলের উপকূলীয় এলাকায় আজ ও আগামীকাল সামান্য বৃষ্টি হতে পারে।'

আবহাওয়া বিশ্লেষণে দেখা গেছে, ১০ থেকে ১৩ অক্টোবর খুলনা, ১৮ অক্টোবর সীতাকুণ্ড ও ২১ অক্টোবর কক্সবাজারে দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়।

বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, অক্টোবরে গড় তাপমাত্রা শূন্য দশমিক ছয় ডিগ্রি সেলসিয়াস বেড়েছে। ওই মাসে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে শূন্য দশমিক সাত ও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা শূন্য দশমিক চার ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি ছিল।

তারা পূর্বাভাসে জানিয়েছেন, চলতি মাসে দেশে বঙ্গোপসাগরে একটি বা দুটি লঘুচাপ সৃষ্টি হতে পারে। যার মধ্যে একটি নিম্নচাপ বা ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে।

আবহাওয়াবিদ তরিফুল নেওয়াজ কবির মনে করেন, সুস্পষ্ট লঘুচাপটি ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নেওয়ার সম্ভবনা নেই বললেই চলে।

Comments