দিনাজপুরে বিআরটিসির বাস-ভ্যান সংঘর্ষে নিহত ৪

আজ সকাল সাড়ে ৭টার দিকে এই দুর্ঘটনা ঘটে।
দিনাজপুরে বিআরটিসির বাস-ভ্যান সংঘর্ষে নিহত ৪
বিআরটিসির বাস ও ভ্যানের সংঘর্ষ হয়। ছবি: সংগৃহীত

দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলায় বিআরটিসি বাসের সঙ্গে যাত্রীবাহী ভ্যানের সংঘর্ষে চারজন নিহত হয়েছেন।

আজ মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

দশমাইল হাইওয়ে থানার পুলিশের বরাত দিয়ে বিষয়টি দ্য ডেইলি স্টারকে নিশ্চিত করেছেন চিরিরবন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হাসনাত খান।

তিনি জানান, সকাল সাড়ে ৭টার দিকে রংপুর-দিনাজপুর মহাসড়কের রানীরবন্দর এলাকায় বিআরটিসির রংপুরগামী বাসের সঙ্গে ভ্যানটির সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই ভ্যানে থাকা দুই আরোহী ও দুই পথচারী নিহত হন।

নিহতরা হলেন—বটতলী গ্রামের মৃত ইসমাইল হোসেনের ছেলে আব্দুল মজিদ (৫০), দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলার প্লান বাজারের মৃত আজিমুদ্দিনের ছেলে নজরুল ইসলাম নাজু (৪০), কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার ভূরিখোলা ইউনিয়নের মৃত সাংসু চাকমার ছেলে লতাইয়া চাকমা (৫২) ও একই এলাকার  মৃত ইয়ংগো চাকমার ছেলে মাইন্দো চাকমা (৪৫)।

ডেইলি স্টারের কাছে আসা সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, দিনাজপুর-রংপুর মহাসড়কের চিরিরবন্দর উপজেলার রানিরবন্দর এলাকায় রংপুরগামী একটি বাস যাত্রী নামানোর সময় গতি কমিয়ে দেয়। আরও দুটি বাস ডান দিক থেকে ওই বাসটিকে ওভারটেক করে চলে যায়। কিন্তু দিনাজপুর থেকে রংপুরগামী বিআরটিসির বাসটি বামদিকে গিয়ে মহাসড়কের ওপর থাকা দুটি রিকশাভ্যান ও মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দেয়।

স্থানীয় বাসিন্দা খাদেমুল ইসলাম জানান, চালক বাসের গতি নিয়ন্ত্রণের কোনো চেষ্টা না করে দুটি রিকশাভ্যান ও মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দেয়।

দশমাইল হাইওয়ে থানার ওসি তরিকুল ইসলাম জানান, দুর্ঘটনার পর রংপুর-দিনাজপুর মহাসড়কে যান চলাচল প্রায় দুই ঘণ্টা বন্ধ থাকে। স্থানীয়রা প্রায় এক ঘণ্টা সড়ক অবরোধ করে রাখে। পরে সকাল ১০টা থেকে সেখানে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

তিনি আরও জানান, পুলিশ বাসটিকে জব্দ করলেও দুর্ঘটনার পর চালক, হেলপার ও সুপারভাইজার পালিয়ে গেছেন।

Comments