অপরাধ ও বিচার

স্বামী হলেন আসামি

স্ত্রী নিখোঁজ। থানায় জিডিও করেছেন। স্ত্রীকে খুঁজে বের করে দেওয়ার জন্য স্ত্রীর ভাইকে হুমকিও দিয়েছেন। অবশেষ নিজেই এখন স্ত্রী হত্যার মামলায় গ্রেপ্তার।
নৌকার এজেন্টের ৬ মাসের কারাদণ্ড
প্রতীকী ছবি। স্টার ডিজিটাল গ্রাফিক্স

স্ত্রী নিখোঁজ। থানায় জিডিও করেছেন। স্ত্রীকে খুঁজে বের করে দেওয়ার জন্য স্ত্রীর ভাইকে হুমকিও দিয়েছেন। অবশেষ নিজেই এখন স্ত্রী হত্যার মামলায় গ্রেপ্তার।

রাজধানীর পূর্ব জুরাইনের মো. দেলোয়ার স্ত্রী দুলনা বেগমকে (৫০) নিজ বাসায় হত্যা করে একই বাসার নির্মানাধীন ভবনের ৫তলায় বালুর স্তুপের নিচে মরদেহ লুকিয়ে রাখেন।

কদমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রলয় কুমার সাহা দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, 'স্ত্রীকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না এই মর্মে গত ৩ তারিখে থানায় জিডি করেন দোলোয়ার। জিডিতে উল্লেখ করেন ব্যবসার কাজে সকাল সাড়ে ৬টার দিকে বাসা থেকে বের হন তিনি। তার ২ মেয়ে স্কুলে যায়। পরে বাসায় এসে তিনি আর স্ত্রীকে খুঁজে পাননি।'

ওসি বলেন, 'দুলনা বেগমকে কোথাও খুঁজে না পেলে আমাদের সন্দেহ হয় এবং প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দেলোয়ারকে আটক করা হয়। পরে দেলোয়ার হত্যার কথা স্বীকার করেন। আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নির্মাণাধীন ভবনের বালুর ভেতর থেকে মরদেহ উদ্ধার করা হয়।'

দুলনা বেগমের ভাই মো. জহিরুল হক ডেইলি স্টারকে বলেন, 'দেলোয়ার গত রোববার ফোন করে আমার বোন নিখোঁজ হওয়ার বিষয়টি জানান এবং দাবি করেন আমার বোন আমাদের এখানে আছে। বোনকে বের করে না দিলে আমার নামে মামলা করবেন বলেও হুমকি দেন তিনি।'

'এর আগে ২৩ আগস্ট বাড়িতে এসে বড় ভাই বকুল মিয়াকে আমার বোন বলেছিলেন যে তাকে হত্যা করা হতে পারে। আমরা বিষয়টি তেমনভাবে গুরুত্ব দেয়নি। পারিবারিক কলহের জের ধরে আমার বোনকে হত্যা করা হয়েছে। আমরা এর বিচার চাই,' তিনি যোগ করেন।

Comments