অপরাধ ও বিচার

ভাঙচুর-হামলায় মামলা: বিএনপির ৩৯ নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন

২০১৭ সালের অক্টোবরে একটি বিক্ষোভ সমাবেশ চলাকালীন যানবাহন ভাঙচুর ও পুলিশের ওপর হামলার অভিযোগে করা মামলায় ৩৯ জন বিএনপি নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা করেছে।
স্টার অনলাইন গ্রাফিক্স

২০১৭ সালের অক্টোবরে একটি বিক্ষোভ সমাবেশ চলাকালীন যানবাহন ভাঙচুর ও পুলিশের ওপর হামলার অভিযোগে করা মামলায় ৩৯ জন বিএনপি নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা করেছে।

আজ মঙ্গলবার ঢাকার অ্যাডিশনাল চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এ অভিযোগ গঠন করা হয়।

অভিযুক্তদের মধ্যে আছেন যুবদলের সভাপতি সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, বিএনপির কেন্দ্রীয় তথ্য বিষয়ক সম্পাদক আজিজুল বারী হেলাল ও বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব হাবিব-উন-নবী খান সোহেল।

আদালতে অ্যাডিশনাল চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট তোফাজ্জল হোসেন অভিযোগ পড়ে শোনার পর সোহেল, হেলাল ও ৪৭ অভিযুক্ত ব্যক্তি নিজেদের নির্দোষ দাবি করেন। তাদের প্রত্যেকেই বর্তমানে জামিনে আছেন।

দিনের শুরুতে আদালত অভিযুক্তদের দায়মুক্তির আবেদন নাকচ করেন এবং বিচারিক কার্যক্রম শুরুর দিন হিসেবে ২০২৩ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি তারিখ নির্ধারণ করেন।

মামলার বিবৃতিতে অভিযোগ আনা হয়েছে, ২০১৭ সালের ২৮ অক্টোবর সকাল সোয়া ১১টার দিকে টুকুর নেতৃত্বে একদল বিএনপি নেতা-কর্মী পল্টনে বিএনপির প্রধান কার্যালয়ের সামনে একটি বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করেন। সেসময় দলটির চেয়ারপারসনের গাড়িবহর সে এলাকা পার হচ্ছিল। 
অভিযুক্তরা যানবাহন ভাঙচুর করেন, পুলিশের সদস্যদের ওপর হামলা চালান এবং তাদেরকে তাদের দায়িত্ব পালনে বাধা দেন। এই হামলায় বাদীসহ একাধিক পুলিশ সদস্য আহত হন বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

এ ঘটনার পর পল্টন থানার উপ-পরিদর্শক আবুল কালাম বাদী হয়ে টুকু, সোহেল, হেলাল ও অপর ২৩ ব্যক্তির বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন। 
একই থানার উপ-পরিদর্শক ও এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সোমেন কুমার বড়ুয়া এজাহারে অভিযুক্ত ২৬ ব্যক্তিসহ ৪০ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনেন।

ইতোমধ্যে অভিযুক্ত শফিউল বারি বাবু মারা গেছেন। ফলে তার নাম অভিযুক্তদের তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে।

Comments