অপরাধ ও বিচার

পার্বতীপুরে ৪টি রেলইঞ্জিনের ব্যাটারি চুরি, ৭ রেলপুলিশ সদস্য বরখাস্ত

দিনাজপুরের পার্বতীপুর রেলওয়ে লোকোশেড থেকে ৪টি রেল ইঞ্জিনের ৩২টি ব্যাটারি চুরির ঘটনায় দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর এসআইসহ ৭ সদস্যকে বরখাস্ত করা হয়েছে।
স্টার ফাইল ফটো

দিনাজপুরের পার্বতীপুর রেলওয়ে লোকোশেড থেকে ৪টি রেল ইঞ্জিনের ৩২টি ব্যাটারি চুরির ঘটনায় দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর এসআইসহ ৭ সদস্যকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

এ ঘটনায় লোকোশেড ইনচার্জ মো. কাফিউল ইসলাম জিআরপি থানায় একটি মামলা করেছেন।

জানা গেছে, 'লোকোশেড' একটি তৃতীয় শ্রেণির কেপিআই এলাকা হওয়ায় রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর একজন এসআই'র নেতৃত্বে ১৩ জন সদস্য সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করে থাকে। এছাড়া প্রায় কোটি টাকা খরচ করে সিসিটিভি ক্যামেরা বসিয়ে পুরো এলাকাটি সার্বক্ষণিক মনিটরিংয়ের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এখানে রেল ইঞ্জিনের ফুয়েলিংসহ হালকা রক্ষণাবেক্ষণের কাজ করা হয়।

কঠোর নিরাপত্তা বেষ্টনীর ভেতর থেকেই গত ৪ নভেম্বর রাতে ৪টি লোকোমোটিভ (রেলইঞ্জিন) এর ৩২ ব্যাটারি চুরি হয়ে যায়। প্রতিটি ব্যাটারির মূল্য ৪৫ হাজার টাকা হিসেবে ৩২টি ব্যাটারির বাজারমূল্য ১১ লাখ ২০ হাজার টাকা বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে।

ঘটনার ৬ দিন পর গত ১০ নভেম্বর লোকো ইনচার্জ মো. কাফিউল ইসলাম অজ্ঞাতনামা দুর্বৃত্তদের আসামি করে পার্বতীপুর রেলওয়ে থানায় (জিআরপি) একটি মামলা করেন।

এদিকে দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে লোকোশেড নিরাপত্তার দায়িত্বরত রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর সহকারী পরিদর্শক (এসআই) মহিদুল ইসলাম মাহিদ, হাবিলদার ইমদাদুল হক, সিপাহী তৌহিদুল ইসলাম, সিপাহী আব্দুল্লাহ আল মামুন, সিপাহী শাহিন মিয়া, সিপাহী ছোটন চক্রবর্তী ও সিপাহী মাহবুবুর রহমানকে সাময়িক বরখাস্ত করে লালমনিরহাট বিভাগীয় কার্যালয়ে ক্লোজ করে নেওয়া হয়েছে।

রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর পার্বতীপুর কার্যালয়ের ইনচার্জ ইনস্পেক্টর (পরিদর্শক) মো. আহসান হাবিব জানান, গত ৮ নভেম্বর রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর লালমনিরহাট ডিভিশনের কমান্ডেন্ট মো. শফিকুল ইসলামের নির্দেশে তাদের বিরুদ্ধে এ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

পার্বতীপুর জিআরপি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নুরুল ইসলাম মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

Comments