অপরাধ ও বিচার

রাষ্ট্রপতির এপিএস আজিজুলই প্রথমে এডিসি হারুনের ওপর হামলা করেন: ডিবি প্রধান

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) অতিরিক্ত কমিশনার মোহাম্মদ হারুন–অর–রশীদ বলেছেন, শনিবার সন্ধ্যায় বারডেম হাসপাতালে রাষ্ট্রপতির সহকারী একান্ত সচিব (এপিএস) আজিজুল হকই প্রথমে এডিসি হারুন অর রশিদের ওপর হামলা করেছিলেন। এটাও তদন্ত হওয়া উচিত।
হারুন-অর-রশিদ। ফাইল ছবি

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) অতিরিক্ত কমিশনার মোহাম্মদ হারুন–অর–রশীদ বলেছেন, শনিবার সন্ধ্যায় বারডেম হাসপাতালে রাষ্ট্রপতির সহকারী একান্ত সচিব (এপিএস) আজিজুল হকই প্রথমে এডিসি হারুন অর রশিদের ওপর হামলা করেছিলেন। এটাও তদন্ত হওয়া উচিত।  

আজ মঙ্গলবার রাজধানীর মিন্টো রোডে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।

ডিবির অতিরিক্ত কমিশনার বলেন, 'তিনি (রাষ্ট্রপতির এপিএস আজিজুল হক) একজন সরকারি কর্মকর্তা। তিনি পুলিশের ওপর প্রথমে হামলা করেন। তিনি ইচ্ছা করলে আমাদের (পুলিশ) ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানাতে পারতেন, অবহিত করতে পারতেন। অথবা তার ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানাতে পারতেন।'

'সেটি না করে হাসপাতালের ভেতরে অসংখ্য মানুষের সামনে একজন পুলিশ কর্মকর্তাকে ধাওয়া করা, তার চশমা ভেঙে ফেলা, তার ওপর আঘাত করা— এটা সঠিক করেছেন কি না, আমি জানি না। তবে এটা তদন্ত হওয়া উচিত', বলেন তিনি।

মোহাম্মদ হারুন–অর–রশীদ জানান, বারডেম হাসপাতাল থেকে ছাত্রলীগ নেতাদের নির্যাতনের ঘটনা শুরু হয়।

এ বিষয়ে রাষ্ট্রপতির এপিএস আজিজুল হকের বক্তব্য জানতে তার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন ধরেননি এবং বার্তা পাঠালেও সাড়া দেননি।

ডিবির অতিরিক্ত কমিশনার বলেন, 'পুলিশ কখনোই কোনো কর্মকর্তার ব্যক্তিগত দায় নেয় না।'

তিনি বলেন, 'এ ঘটনায় তদন্তকারী কর্মকর্তারা স্বাধীনভাবে তদন্ত করছেন এবং করবেন। ৩ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। তারা যখন প্রতিবেদন দেবেন, তখনই বুঝতে পারবেন প্রকৃতপক্ষে কী ঘটেছে।'

ছাত্রলীগের ২ নেতাকে মারধরের ঘটনায় রোববার হারুনকে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নে (এপিবিএন) বদলি করা হয়। গতকাল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তাকে সাময়িক বরখাস্ত করে পুলিশ অধিদপ্তরে সংযুক্ত করে। এ ঘটনায় শাহবাগ থানার পরিদর্শক (অপারেশন) গোলাম মোস্তফাকেও দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। সোমবার রাতে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনারের এক অফিস আদেশে তাকে ডিএমপির কেন্দ্রীয় সংরক্ষণ দপ্তরে বদলি করা হয়।

 

Comments