নিবন্ধন বাতিল: জামায়াতের আপিল শুনানি ১২ নভেম্বর

আজ সোমবার প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের চার সদস্যের বেঞ্চ শুনানির এই দিন ধার্য করেন।
high court
স্টার ফাইল ফটো

নির্বাচন কমিশনে জামায়াতে ইসলামীর নিবন্ধন বাতিল করে হাইকোর্টের দেওয়া রায়ের বিরুদ্ধে দলটির করা আপিল শুনানির জন্য আগামী ১২ নভেম্বর দিন ধার্য করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।

ওই একই দিনে জামায়াতে ইসলামীর বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার আবেদনসহ পৃথক দুটি আবেদনের ওপরেও শুনানি হবে। শেষ রিট আবেদনটিতে জামায়াতের নাম বা ব্যানার ব্যবহার করে সভা-সমাবেশ, মিছিলসহ যেকোনো ধরনের রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড ওপর নিষেধাজ্ঞা চেয়ে আপিল বিভাগের আদেশ চেয়ে আবেদন করা হয়েছে।

আজ সোমবার প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের চার সদস্যের বেঞ্চ শুনানির এই দিন ধার্য করেন।

বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশনের সেক্রেটারি জেনারেল রেজাউল হক চাঁদপুরীসহ আরও দুইজন গত ২৬ জুন জামায়াতে ইসলামীর লিভ টু আপিল নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত দলটিকে বৈধ রাজনৈতিক দল হিসেবে দাবি করতে না পারার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারির আবেদন করেন।

এর আগে ২০১৩ সালের ১ আগস্ট নির্বাচন কমিশনে জামায়াতের নিবন্ধন বাতিল করে হাইকোর্টের দেওয়া রায়ের বিরুদ্ধে আরেকটি রিট দায়ের করা হয়।

এছাড়া গত ২৬ জুন জামায়াতে ইসলামীর আমীর শফিকুর রহমানসহ পাঁচ নেতার বিরুদ্ধে আপিল নিষ্পত্তির অপেক্ষায় থাকা সত্ত্বেও রাজনৈতিক দল হিসেবে জনসভা করায় আদালত অবমাননার আবেদন করেন চাঁদপুরীসহ আরও দুজন।

জামায়াতে ইসলামীকে ঢাকায় কর্মসূচি পালনের অনুমতি দেওয়ায় কয়েকজন ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগও আনা হয়।

জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল গোলাম পরওয়ার, কেন্দ্রীয় নায়েবে আমীর আবদুল্লাহ মোহাম্মদ তাহের, মহানগর দক্ষিণের আমীর নুরুল ইসলাম বুলবুল ও ঢাকার নায়েবে আমীর হেলাল উদ্দিনের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার মামলা দায়ের করা হয়েছে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব (জননিরাপত্তা বিভাগ) মোস্তাফিজুর রহমান, বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন ও ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার খন্দকার গোলাম ফারুককে আদালত অবমাননার রিটে বিবাদী করা হয়েছে।

আদালত অবমাননার মামলায় জামায়াতের বিরুদ্ধে যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের অনুমতি চেয়ে গত ২৭ জুলাই সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করেন বিভিন্ন পেশার ৪২ জন বিশিষ্ট নাগরিক।

আবেদনকারীদের মধ্যে আছেন শিক্ষাবিদ ও ইতিহাসবিদ সৈয়দ আনোয়ার হোসেন, লেখক ও গবেষক শারিয়ার কবির, শিক্ষাবিদ শ্যামলী নাসরিন চৌধুরী, অভিনেতা-নাট্যকার রামেন্দু মজুমদার প্রমুখ।

এর আগে গত ৩১ জুলাই জামায়াতে ইসলামীর নিবন্ধন বাতিলের হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের অনুমতি চেয়ে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করেন জামায়াতে ইসলামীর ৪৭ জন সমর্থক।

তাদের মধ্যে আছেন- জামায়াতের সাবেক সংসদ সদস্য সৈয়দ আবদুল্লাহ মোহাম্মদ তাহের, হামিদুর রহমান আজাদ ও হাফেজা আসমা খাতুন।

Comments

The Daily Star  | English

Loan default now part of business model

Defaulting on loans is progressively becoming part of the business model to stay competitive, said Rehman Sobhan, chairman of the Centre for Policy Dialogue.

7h ago