অপরাধ ও বিচার

বান্দরবানের ভেলাখুমে পর্যটকদের ১৫টি স্মার্টফোন ও টাকা ছিনতাই

বান্দরবানের থানচি উপজেলার ভেলাখুম ভ্রমণে যাওয়া একদল পর্যটকের কাছ থেকে ১৫টি স্মার্টফোন ও ১ লাখ ৮১ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়েছে সংঘবদ্ধ সন্ত্রাসীরা।
বান্দরবানের ভেলাখুম পর্যটনকেন্দ্র। ছবি: সংগৃহীত

বান্দরবানের থানচি উপজেলার ভেলাখুম ভ্রমণে যাওয়া একদল পর্যটকের কাছ থেকে ১৫টি স্মার্টফোন ও ১ লাখ ৮১ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়েছে সংঘবদ্ধ সন্ত্রাসীরা।

গতকাল রোববার রাতে ভেলাখুম পর্যটন এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। পর্যটক দলের সদস্য অনিক মোদক জানান, গত শনিবার তারা দুই দলের মোট ২২ জন নাফাখুম ভ্রমণে যান। নাফাখুম থেকে ভেলাখুমে গিয়ে পরদিন রাতে সেখানেই ক্যাম্পিং করে থাকার প্রস্তুতি নেন। রাত সাড়ে ১০টার দিকে আটজনের একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী তাদের ক্যাম্পে হানা দিয়ে তাদের সঙ্গে থাকা টাকা স্মার্টফোন ছিনিয়ে নেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে থানচি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জসিম উদ্দিন দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, কখন, কোথায় কী ঘটনা ঘটেছে আমরা এখনো কিছু জানি না।

তিনি আরও বলেন, ইদানীং পাহাড়ে সন্ত্রাসীদের কার্যকলাপের কারণে রেমক্রী খালের মুখ পর্যন্ত পর্যটকদের ভ্রমণের অনুমতি দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু নাফাখুম, আমিয়াখুম, ভেলাখুমের যাওয়ার প্রশ্নই আসে না। যেসব গাইড ওখানে পর্যটকদের নিয়ে গেছে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাংলাদেশ টুরিস্ট পুলিশের থানচি উপজেলা ইন-চার্জ মো. আনোয়ার দ্য ডেইলি স্টারকে জানান, এখনো এ ধরনের খবর পাইনি। আপনার মাধ্যমে জানলাম। গত বছর বান্দরবানে কুকি-চিন সন্ত্রাসীদের সঙ্গে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর মধ্যে বন্দুকযুদ্ধের পর থেকে থানচির রেমাক্রী, রুমা ও রোয়াংছড়ি উপজেলায় দুর্গম পর্যটন স্পটগুলোতে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা বলবৎ আছে।

থানচি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ মামুন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ভুক্তভোগীরা আমার কার্যালয়ে এসে বিষয়টি জানিয়েছে। তাদেরকে থানায় যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

Comments