যুক্তরাষ্ট্রের গণতন্ত্র সম্মেলনে এবারও আমন্ত্রণ পায়নি বাংলাদেশ

যুক্তরাষ্ট্রের আয়োজিত গনতন্ত্র সম্মেলনে এবারও আমন্ত্রণ জানানো হয়নি বাংলাদেশকে। যদিও দক্ষিণ এশিয়ার ভারত, মালদ্বীপ, নেপাল ও পাকিস্তান আমন্ত্রণ পেয়েছে।
স্টার অনলাইন গ্রাফিকস

যুক্তরাষ্ট্রের আয়োজিত গনতন্ত্র সম্মেলনে এবারও আমন্ত্রণ জানানো হয়নি বাংলাদেশকে। যদিও দক্ষিণ এশিয়ার ভারত, মালদ্বীপ, নেপাল ও পাকিস্তান আমন্ত্রণ পেয়েছে।

এর আগে ২০২১ সালের ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত প্রথম গণতন্ত্র শীর্ষ সম্মেলনে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের ১১০টি আমন্ত্রিত দেশের তালিকায় বাংলাদেশ ছিল না।

তখন অবশ্য পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন আশা প্রকাশ করেছিলেন যে বাইডেন প্রশাসন পরের বছর বাংলাদেশকে আমন্ত্রণ জানাবে।

গতকাল সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তর দ্বিতীয় গণতন্ত্র সম্মেলনের ১১০টি আমন্ত্রিত দেশের নাম প্রকাশ করে। এই তালিকায় বাংলাদেশের নাম নেই।

যোগাযোগ করা হলে যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের মুখপাত্র (ভারপ্রাপ্ত) ব্রায়ান শিলার দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, 'বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলের কিছু বিষয়ের ও বৈচিত্র্যের প্রতিনিধিত্ব করে এমন দেশগুলোকে প্রেসিডেন্ট বাইডেন গণতন্ত্র সম্মেলনে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।'

প্রথম শীর্ষ সম্মেলনে অংশগ্রহণকারী দেশগুলোকে গণতন্ত্র শক্তিশালী করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানায় যুক্তরাষ্ট্র এবং ২০২২ সালকে তা 'বাস্তবায়নের বছর' হিসেবে ঘোষণা করে।

মুখপাত্র শিলার বলেন, 'আমরা বাংলাদেশসহ আগের সম্মেলনে আমন্ত্রণ না পাওয়া দেশগুলোর গণতন্ত্রকে শক্তিশালী করতে এবং কর্তৃত্ববাদ ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই এবং মানবাধিকারের প্রতি শ্রদ্ধায় তাদের প্রতিশ্রুতির বিষয়ে কর্মপরিকল্পনা প্রকাশ করতে বলেছি।'

দ্বিতীয় সম্মেলনে আমন্ত্রণ জানানোর ক্ষেত্রে এগুলো বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

চলতি বছরের ২৯-৩০ মার্চ এ সম্মেলন যৌথভাবে আয়োজন করবে যুক্তরাষ্ট্র, কোস্টারিকা, নেদারল্যান্ডস, দক্ষিণ কোরিয়া, ও জাম্বিয়া।

এক বিবৃতিতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেন, 'আমরা যতই সমস্যার মুখোমুখি হই না কেন, আমরা জানি মানুষের সম্ভাবনাকে প্রকাশ করার এবং সব মানুষকে সহযোগিতার সর্বোত্তম হাতিয়ার হলো গণতন্ত্র এবং আমরা একে সর্বোচ্চ মর্যাদায় আসীন করব।'

 

Comments