হিলির ওপারে ‘বিএসএফের গুলিতে’ বাংলাদেশি নিহত

দিনাজপুরের হাকিমপুর উপজেলার হিলি সীমান্তের ওপারে ভারতীয় ভূখণ্ডে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) গুলিতে বাংলাদেশি এক যুবক নিহত হয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।
বিএসএফের সঙ্গে পতাকা বৈঠকের আগে বিজিবি সদস্যরা। ছবি: সংগৃহীত

দিনাজপুরের হাকিমপুর উপজেলার হিলি সীমান্তের ওপারে ভারতীয় ভূখণ্ডে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) গুলিতে বাংলাদেশি এক যুবক নিহত হয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

শুক্রবার সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা ও পুলিশ জানায়, এ ঘটনার পর থেকে উপজেলার ধরন্দা (ফকিরপাড়া) গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে শাহাবুল ইসলাম বাবু নিখোঁজ আছেন।

তবে বিজিবি এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো বাংলাদেশি নাগরিকের নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেনি।

এ নিয়ে আজ শনিবার দুপুরে বিজিবি ও বিএসএফের মধ্যে পতাকা বৈঠক হয়েছে। তারপরও বিষয়টির কোনো সুরাহা হয়নি।

স্থানীয়রা জানান, শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে বিএসএফ সদস্যরা তাদের ভূখণ্ডের প্রায় ৩০০ মিটার ভেতরে ২ রাউন্ড গুলি ছোড়ে। রাত ১০টার দিকে ফেসবুকের মাধ্যমে জানা যায় সেই গুলিতে একজন নিহত হয়েছেন।

পরে স্থানীয় সাংবাদিক ও নিখোঁজ যুবকের পরিবারের সদস্যরা শুক্রবার গভীর রাতে জয়পুরহাট ব্যাটালিয়নের অধীন বিজিবির কোম্পানি ক্যাম্পের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। তবে বিজিবি আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের কিছু নিশ্চিত করতে পারেনি।

এ বিষয়ে জানতে জয়পুরহাট বিজিবি ব্যাটালিয়নের সিও লেফটেন্যান্ট কর্নেল রফিকুল ইসলামের ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি সাড়া দেননি।

তবে তিনি স্থানীয় সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেছেন যে, শুক্রবার সন্ধ্যায় ভারতীয় ভূখণ্ডের ভেতর একটি গুলির ঘটনা ঘটেছে।

নিখোঁজ যুবকের বাবা আবুল হোসেন দ্য ডেইলি স্টারকে জানান, শুক্রবার সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে বের হওয়ার পর থেকে তার ছেলে বাবু নিখোঁজ। এখনো তার খোঁজ মেলেনি।

তার দাবি, শুক্রবার সন্ধ্যায় বিএসএফের গুলিতে তার ছেলে নিহত হয়েছে বলে ফেসবুকে জানতে পারেন।

বিজিবি ব্যাটালিয়নের সিও রফিকুল ইসলাম স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান, আজ যে পতাকা বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়েছে, তা নিয়মিত পতাকা বৈঠক ছিল।

এ বিষয়ে হাকিমপুর পৌর মেয়র এন এ এম জামিল হোসেন চলন্ত ডেইলি স্টারকে বলেন, 'শুক্রবার রাত থেকে এক যুবক নিখোঁজ থাকার দাবি করেছে তার পরিবার। বিজিবিকে লিখিতভাবে বিষয়টি জানানো হয়েছে। তবে বিজিবি এখনো কিছু নিশ্চিত করেনি।'

তবে ইউএনবিকে ২০ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল রফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, 'বিএসএফের পক্ষ থেকে এখনো মরদেহ হস্তান্তর করা হয়নি।'

এ ঘটনার পর থেকে হিলি সীমান্তে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

Comments