ইউরোপ

অপরাধী রাশিয়ার ভেটো ক্ষমতা কেড়ে নিন: জেলেনস্কি

নিরাপত্তা কাউন্সিলে বক্তব্য রাখার সময় জেলেনস্কি বলেন, ‘বিশ্বের বেশিরভাগ দেশ এই যুদ্ধের প্রকৃত সত্যটি স্বীকার করে নিয়েছে। রাশিয়া আমাদের দেশের বিরুদ্ধে বিনা উসকানিতে হামলা চালিয়েছে, যা একটি অপরাধমূলক কার্যক্রম। এর একমাত্র উদ্দেশ্য ইউক্রেনের ভূখণ্ড দখল ও সম্পদ হাতিয়ে নেওয়া।’
রাশিয়ার ভেটো ক্ষমতা
নিরাপত্তা কাউন্সিলে বক্তব্য রাখছেন জেলেনস্কি। ছবি: রয়টার্স

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি জাতিসংঘের নিরাপত্তা কাউন্সিলে রাশিয়াকে 'অপরাধী' রাষ্ট্র হিসেবে অভিহিত করেছেন। ইউক্রেনে হামলা চালানোর জন্য তিনি ক্রেমলিনের নিন্দা করেন এবং মস্কোর ভেটো ক্ষমতা কেড়ে নেওয়ার জন্য জাতিসংঘের প্রতি আহ্বান জানান।

আজ বৃহস্পতিবার এএফপি এই তথ্য জানিয়েছে।

ইউক্রেনে রাশিয়া হামলা শুরু পর থেকে যতবার জনসম্মুখে এসেছেন জেলেনস্কি, প্রায় প্রতি ক্ষেত্রেই তার পরনে ছিল 'সামরিক পোশাক (মিলিটারি ফ্যাটিগ)।' গতকাল বুধবারও এর ব্যতিক্রম হয়নি। এই পোশাক পরেই তিনি জাতিসংঘের এই অধিবেশনে অংশ নেন।

নিরাপত্তা কাউন্সিলে বক্তব্য রাখার সময় জেলেনস্কি বলেন, 'বিশ্বের বেশিরভাগ দেশ এই যুদ্ধের প্রকৃত সত্যটি স্বীকার করে নিয়েছে। রাশিয়া আমাদের দেশের বিরুদ্ধে বিনা উসকানিতে হামলা চালিয়েছে, যা একটি অপরাধমূলক কার্যক্রম। এর একমাত্র উদ্দেশ্য ইউক্রেনের ভূখণ্ড দখল ও সম্পদ হাতিয়ে নেওয়া।'

নিরাপত্তা কাউন্সিলে যুক্তরাজ্য, চীন, ফ্রান্স ও যুক্তরাষ্ট্রের পাশাপাশি রাশিয়াও স্থায়ী সদস্য হিসেবে ভেটো ক্ষমতা উপভোগ করে, যার মাধ্যমে যেকোনো ধরনের প্রস্তাবকে নাকচ করার ক্ষমতা রয়েছে এই দেশগুলোর।

ইউক্রেনের নেতা জানান, এ ধরনের উদ্যোগে নিরাপত্তা পরিষদে প্রয়োজনীয় কিছু সংস্কারের পথ সুগম হবে, যার মধ্যে আছে স্থায়ী সদস্যদের মধ্যে উন্নয়নশীল দেশের প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করা। এসব দেশে ইউক্রেনের পক্ষে সমর্থন নিয়ে তেমন একটা সাড়া পাননি জেলেনস্কি।

জেলেনস্কি বলেন, 'হামলাকারীর হাতে ভেটো ক্ষমতা থাকার কারণে জাতিসংঘ তার দায়িত্ব পালন করতে পারছে না।'

'যুদ্ধ বন্ধ করা অসম্ভব হয়ে পড়েছে, কারণ এ ধরনের সব উদ্যোগ হামলাকারী অথবা তার পক্ষে সহানুভূতিশীল শক্তির ভেটোর কারণে বাতিল হয়ে যাচ্ছে', যোগ করেন তিনি।

জেলেনস্কি আবারো জানান, নিরাপত্তা পরিষদে মস্কোর ভেটো ক্ষমতা আদতে সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নকে দেওয়া হয়েছিল—দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের অন্যতম বিজেতা রাষ্ট্র হিসেবে।

জেলেনস্কি বলেন, 'দুর্ভাগ্যজনক ভাবে, সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের বিলুপ্তির পর রাশিয়া পেছনে দরজার কারসাজির মাধ্যমে অবৈধভাবে এই আসনটি দখল করে নিয়েছে। এরপর এটি মিথ্যাবাদীদের দখলে চলে গেছে, যাদের একমাত্র কাজ হচ্ছে আগ্রাসী আচরণ ও গণহত্যার ঘটনাগুলোকে ধামাচাপা দেওয়া'।

জেলেনস্কি জানান, রাশিয়ার ভেটো ক্ষমতা রদ করা খুব একটা সহজ হবে না। তিনি স্বীকার করেন, মস্কো এই 'চুরি করে নেওয়া অধিকার স্বেচ্ছায় ছেড়ে দেবে না'।

তবে ভেটো ক্ষমতা রদ হওয়ার উদাহরণ রয়েছে। ১৯৭১ সালে চীনের প্রতিনিধি হিসেবে বিবেচিত তাইওয়ানের কাছ থেকে ভেটো ক্ষমতা সরিয়ে তা চীনের মূল ভূখণ্ডের সমাজতান্ত্রিক শাসকের কাছে স্থানান্তর করা হয়।

জেলেনস্কি চলে যাওয়ার পর নিরাপত্তা কাউন্সিলে উপস্থিত হন রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ। তিনি রাশিয়ার ভেটো ক্ষমতা প্রত্যাহারের বিষয়টি হেসে উড়িয়ে দেন এবং জানান, এটা পশ্চিমা শক্তিগুলোকে নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য জরুরি।

জাতিসংঘে রাষ্ট্রপতি জেলেনস্কির ভাষণ
রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ। ছবি: এপি

লাভরভ জানান, 'জাতিসংঘের সনদ মতে, ভেটো ক্ষমতার ব্যবহার সম্পূর্ণ বৈধ'।

আলোচনায় করতে রাজি না হওয়া জেলেনস্কির নিন্দা করেন লাভরভ।

এরপর লাভরভ কাছাকাছি বসে থাকা মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেনের উদ্দেশ্যে বলে ওঠেন, 'যুক্তরাষ্ট্র জেলেনস্কিকে নির্দেশ দিলেই তিনি আলোচনা করতে রাজি হয়ে যাবেন'।

Comments