ক্রিকেট

‘নারীবিদ্বেষী’ পোস্টের দায় নিলেন তানজিম, সতর্ক করল বিসিবি

কর্মজীবী নারীদের নিয়ে যোগাযোগ মাধ্যমে বিদ্বেষমূলক পোস্ট করা তরুণ ক্রিকেটার তানজিম হাসান সাকিবের সঙ্গে কথা বলেছে বিসিবি। এসব পোস্ট যে তারই দেয়া তা স্বীকার করেছেন তিনি। তবে তিনি নারীবিদ্বেষী নন বলে জানিয়েছেন বিসিবিকে।
নারীবিদ্বেষী পোস্টের দায় নিলেন তানজিম

কর্মজীবী নারীদের নিয়ে যোগাযোগ মাধ্যমে বিদ্বেষমূলক পোস্ট করা তরুণ ক্রিকেটার তানজিম হাসান সাকিবের সঙ্গে কথা বলেছে বিসিবি। এসব পোস্ট যে তারই দেয়া তা স্বীকার করেছেন তিনি। তবে তিনি নারীবিদ্বেষী নন বলে জানিয়েছেন বিসিবিকে। ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান জালাল ইউনুস জানিয়েছেন, এই ক্রিকেটারকে আপাতত তারা কেবল সতর্কই করছেন।

কদিন আগে শেষ হওয়া এশিয়া কাপে বাংলাদেশের হয়ে অভিষেক হয় তানজিমের। ভারতের বিপক্ষে দুই উইকেট নিয়ে আলোচনায় আসেন তিনি। 

প্রশংসায় ভাসার মধ্যে তার ফেসবুকের কিছু পুরনো ও আপত্তিকর পোস্টও ভাইরাল হয়ে পড়ে। যাতে কর্মজীবী নারীদের প্রতি তার বিষোদগার দেখা যায়। এসব পোস্ট ছড়িয়ে পড়ার পর নারী অধিকার কর্মী ও নারীবাদীরা সরব হয়েছেন সমালোচনায়।

তানজিম গত বছর ফেসবুকে পোস্ট করেন, 'স্ত্রী চাকরি করলে স্বামীর হক আদায় হয় না, স্ত্রী চাকরি করলে সন্তানের হক আদায় হয় না, স্ত্রী চাকরি করলে তার কমনীয়তা নষ্ট হয়, স্ত্রী চাকরি করলে পরিবার ধ্বংস হয়, স্ত্রী চাকরি করলে পর্দা নষ্ট হয়, স্ত্রী চাকরি করলে সমাজ নষ্ট হয়।'
তানজিমের আরেকটি পোস্ট ছিল এমন, 'ভার্সিটির ফ্রি-মিক্সিং আড্ডায় অভ্যস্ত মেয়েকে বিয়ে করলে আর যাই হোক সন্তানের জন্য একজন লজ্জাশীলা মা দিতে পারবেন না।'

মঙ্গলবার মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন জালাল। তিনি জানান তারা তানজিমের সঙ্গে আলাপ করেছেন, 'আমরা ক্রিকেট বোর্ড থেকে তানজিম সাকিবের সঙ্গে আমাদের আলাপ আলোচনা হয়েছে, ওর সঙ্গে আমরা কথা বলেছি। মিডিয়া কমিটি থেকেও যোগাযোগ করা হয়েছে এই ব্যাপারে। তাকে আমরা এই ব্যাপারটা অবগত করেছিলাম।  '

'তার বক্তব্য হচ্ছে কাউকে আঘাত করার উদ্দেশে পোস্ট দেয়নি, সে যে পোস্ট দিয়েছে সে মনে করে নিজের থেকে দিয়েছে কিন্তু উদ্দেশ করে পোস্ট দেওয়া হয়নি। এটা দিয়ে কারো মনে আঘাত লাগলে সে সেজন্য দুঃখিত। একটা কথা এসেছে নারীর ব্যাপারে। নারীর ব্যাপারে যে পোস্ট ছিল। সে বলেছে এটার দায় দায়িত্ব নিচ্ছি, আসলে আমি নারী বিদ্বেষী নই। সে বলেছে তার মা নারী, আমি নারী বিদ্বেষী হতে পারি না।' 

একজন সাংবাদিক মনে করিয়ে দেন বিদ্বেষমূলক মন্তব্যের ব্যাপারে আইসিসির কড়া নীতিমালা আছে। ইংল্যান্ডের পেসার ওলি রবিনসন কিশোর বয়েসে দেওয়া পোস্টের কারণে নিষিদ্ধ হয়েছিলেন। জালাল ইউনুস তখন বলেন, তারা কেবল তানজিমকে সতর্কই করছেন,  'যে পোস্ট দিয়েছে তাকে আমরা সতর্ক করেছি, যাতে আগামীতে এই ধরণের কোন পোস্ট না দেয়। সে বলছে অবশ্যই সে এই ধরণের পোস্ট থেকে বিরত থাকবে। যখন সে ভুল স্বীকার করেছে…সে একটা বড় কথা বলেছে সে নারী বিদ্বেষী নয়, বলেছে আমার মাই তো একজন নারী। আমি কীভাবে নারী বিদ্বেষী হই।'

তিনি জানান আপত্তিকর পোস্টগুলো তানজিম মুছে দিয়েছেন। আগামীতে এই ধরনের পোস্ট দিবেন না বলে জানিয়েছেন। তবে তাকে তারা পর্যবেক্ষণে রাখবেন,  'অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ। আমরা তাকে পর্যবেক্ষণ করব। তার পরিবারও শঙ্কিত। তারাও দুঃখিত। যেহেতু সামনে বিশ্বকাপ আছে, যেহেতু সে তরুণ ছেলে। আমরা মনিটর করব। যদি কিছু থাকে আমরা তার বিরুদ্ধে অবশ্যই অ্যাকশন নিব।' 

অন্য কারো প্ররোচনায় নয়, পোস্টগুলো নিজে থেকে দিয়েছেন বলে বিসিবিকে জানিয়েছেন তানজিম,  'সে যা দিয়েছে নিজে থেকে দিয়েছে পোস্টগুলো। ক্ষমা আমাদের কাছে চেয়েছে। তার সঙ্গে আমারা আলাপ আলোচনা করব।'

'জাতীয় দলের কোড অব কন্ডাক্টে ব্যাপার আছে, এসব তাকে মনে করিয়ে দেওয়া হয়েছে।' 
 

Comments