বাজেট ২০২২-২৩

জুন ১০, ২০২২
জুন ১০, ২০২২

করোনায় শিক্ষাক্ষতি কাটিয়ে ওঠার উদ্যোগ নেই বাজেটে

করোনাভাইরাসের কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান দীর্ঘসময় বন্ধ থাকায় লাখো শিক্ষার্থীর শিক্ষা ঘাটতি তৈরি হয়েছে। অথচ এ ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে এবারের প্রস্তাবিত বাজেটে কোনো সুনির্দিষ্ট নতুন উদ্যোগ দেখা যায়নি।

জুন ১০, ২০২২
জুন ১০, ২০২২

শুধু জিডিপি নয়, সামষ্টিক অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা রক্ষায় জোর দিন: সিপিডি

শুধু জিডিপি প্রবৃদ্ধির ওপর নজর না দিয়ে মূল্যস্ফীতির চাপের পরিপ্রেক্ষিতে জনগণকে সুরক্ষা দেওয়া এবং সামষ্টিক অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা রক্ষার ওপর জোর দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে বেসরকারি উন্নয়ন গবেষণা সংস্থা...

জুন ১০, ২০২২
জুন ১০, ২০২২

বাড়ছে ব্রডব্যান্ড, স্মার্টফোন, ল্যাপটপের দাম

প্রস্তাবিত ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেটে বাড়ছে মোবাইল ফোন ও ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের দাম। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, প্রস্তাবিত এই বাজেট আইসিটি খাতের উন্নয়নের পক্ষে অনুকূল নয়।

জুন ১০, ২০২২
জুন ১০, ২০২২

অস্বস্তির বাজেট চেপে ধরার বাজেট

যখন ভরসার প্রয়োজন ছিল, তখন তিনি ভয় পাইয়ে দিলেন।

জুন ৯, ২০২২
জুন ৯, ২০২২

ইস্পাত পণ্যের কাঁচামাল আমদানিতে কর ৫ থেকে কমিয়ে ৩ শতাংশ করার প্রস্তাব

ভৌত অবকাঠামো নির্মাণের অন্যতম উপকরণ গ্যালভানাইজড আয়রন শিট বা স্টিলজাত পণ্য উৎপাদনের ক্ষেত্রে কাঁচামাল আমদানিতে কর কমানোর প্রস্তাব করা হয়েছে প্রস্তাবিত বাজেটে।

জুন ৯, ২০২২
জুন ৯, ২০২২

খেলাপি ঋণ মওকুফ হলেও দিতে হবে কর

খেলাপি ঋণকে করযোগ্য আয় হিসেবে গণ্য করার প্রস্তাব দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। 

জুন ৯, ২০২২
জুন ৯, ২০২২

বাজেট ঘাটতি ২ লাখ ৪৫ হাজার ৬৪ কোটি টাকা

২০২২-২৩ অর্থবছরের সামগ্রিক বাজেটে ঘাটতি ধরা হয়েছে ২ লাখ ৪৫ হাজার ৬৪ কোটি টাকা। যা মোট জিডিপির ৫ দশমিক ৫ শতাংশ।

জুন ৯, ২০২২
জুন ৯, ২০২২

সামাজিক নিরাপত্তায় বরাদ্দ বাড়ছে ৫.৫ শতাংশ

আগামী অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে সামাজিক নিরাপত্তা খাতে ৫ দশমিক ৫ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে।

জুন ৯, ২০২২
জুন ৯, ২০২২

বিদ্যুৎ-জ্বালানি খাতে বরাদ্দ কমেছে দেড় হাজার কোটি টাকা

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে ২০২২-২০২৩ অর্থবছরের বাজেট বরাদ্দ প্রায় দেড় হাজার কোটি টাকা কমেছে। গত অর্থবছরে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের দুটি বিভাগে ২৭ হাজার ৪৮৪ কোটি টাকা বরাদ্দ ছিল।

জুন ৯, ২০২২
জুন ৯, ২০২২

হোটেল, রিসোর্ট, কমিউনিটি সেন্টার আসছে করের আওতায়

আগামী ২০২২-২৩ অর্থবছর থেকে হোটেল, রিসোর্ট, কমিউনিটি সেন্টার ও পরিবহন সংস্থাগুলোকে উৎসে কর কর্তনকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে আনার প্রস্তাব করা হয়েছে।