ক্যাম্পাস

রাষ্ট্রদ্রোহী কর্মকাণ্ডের অভিযোগে শিক্ষার্থীকে পুলিশে দিলো চবি প্রক্টোর

জুবায়ের হোসেন নামে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) এক শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবিরোধী আইনে মামলা দায়ের করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।
সংগৃহীত ফাইল ছবি

জুবায়ের হোসেন নামে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) এক শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবিরোধী আইনে মামলা দায়ের করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

গতকাল বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা দপ্তরের প্রধান আব্দুর রাজ্জাক বাদী হয়ে হাটহাজারী থানায় এ মামলা দায়ের করেন।

তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন রাষ্ট্রদ্রোহী কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার প্রমাণ পেয়েছে বলে দাবি প্রক্টরিয়াল বডির। জুবায়ের ১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের আইন বিভাগের ছাত্র বলে জানা গেছে।

এর আগে বুধবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের জিরো পয়েন্টে জড়ো হয়ে আন্দোলন করেন একদল শিক্ষার্থী। এসময় তারা সিএনজিচালক কর্তৃক শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার প্রতিবাদ, ক্যাম্পাসে চক্রাকার বাস সার্ভিস চালু ও নিরাপদ ক্যাম্পাস নিশ্চিতের দাবি জানান--আন্দোলনকারীদের একজন ছিলেন অভিযুক্ত জুবায়ের।

পরে আন্দোলনকারীদের আলোচনার জন্য প্রক্টর কার্যালয়ে ডাকেন সহকারী প্রক্টর হাসান মুহাম্মাদ রোমান শুভ।  শিক্ষার্থীদের দাবিগুলো শোনার পর আন্দোলনকারী বাকি শিক্ষার্থীদের যেতে দিলেও জুবায়ের নামে ওই শিক্ষার্থীকে প্রক্টর অফিসে আটকে রাখা হয়। ১০ ঘণ্টা আটকে রেখে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে প্রক্টরিয়াল বডি। পরে রাষ্ট্রবিরোধী বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে রাত সাড়ে ৯টার দিকে জুবায়ের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা দায়ের করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা দপ্তর।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভূঁইয়া দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, 'জুবায়ের কথাবার্তায় সন্দেহ হলে তাকে সহকারী প্রক্টররা জিজ্ঞাসাবাদ করেন। তার থেকে একটি ডায়েরি জব্দ করা হয়। সেখানে শাটল ট্রেনে নাশকতার পরিকল্পনা ছিল।'

প্রক্টর বলেন, 'তার মুঠোফোনে একাধিক ছবি পাওয়া গেছে।' যেখানে রাষ্ট্রবিরোধী কার্যক্রমের প্রমাণ পাওয়ার দাবি করেন প্রক্টর।

পরে অভিযুক্ত জুবায়েরকে হাটহাজারী থানায় সোপর্দ করার পর নিরাপত্তা দপ্তর বাদী হয়ে তার বিরুদ্ধে মামলা করে।

হাটহাজারী থানার ওসি রুহুল আমিন দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, 'সন্ত্রাসী কার্যক্রমে জড়িত থাকার অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা প্রধান শেখ মো. আব্দুর রাজ্জাক বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছেন।'

জানা গেছে, অভিযুক্ত জোবায়ের ছাত্র অধিকার পরিষদের একজন কর্মী।

এদিকে ওই শিক্ষার্থীকে প্রক্টর অফিসে আটকে রেখে হেনস্তাসহ মামলা দিয়ে পুলিশকে সোপর্দ করার ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছে চবি ছাত্র ফেডারেশন।

এক বিবৃতিতে সংগঠনটির পক্ষ থেকে বলা হয়, 'চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে চক্রাকারে বাস সার্ভিস চালু, সিএনজিচালক কর্তৃক ছাত্র হেনস্থার বিচারসহ ৪ দফা দাবিতে আন্দোলনরত অবস্থায় আন্দোলনকারীদের তুলে নিয়ে গিয়ে হেনস্থা এবং 'হটাও মাফিয়া বাঁচাও দেশ' স্লোগান সংবলিত ছবি মোবাইলে রাখার অপরাধে আইন বিভাগের শিক্ষার্থী জুবায়ের হোসেনকে রাষ্ট্রদ্রোহী মামলা দিয়ে হাটহাজারী থানায় সোপর্দ করে চবি প্রশাসন। এ ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখা।'

Comments